যুদ্ধবিরতির প্রথম সপ্তাহে সিরিয়ায় নিহত ১৩৫

syria

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাঁচ বছর ধরে চলা রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে অশান্ত সিরিয়ায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে রুশ-মার্কিন মধ্যস্থতায় দেশটিতে চলছে সাময়িক যুদ্ধবিরতি। তবে এর মধ্যে চলছে ছোট খাটো সংঘর্ষ। এক সপ্তাহ আগে যুদ্ধবিরতি শুরু হওয়ার পর এ পর্যন্ত সিরিয়াতে মারা গেছে ১৩৫ জন।
যুক্তরাজ্যভিত্তিক সিরিয়ার মানবাধিকার সংগঠন ‘দ্য সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস’ (এসওএইচআর) শনিবার জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে বিভিন্ন বিদ্রোহী গোষ্ঠি এবং ইসলামি সংগঠনের ৪৫ জন ও সাত শিশুসহ মোট ৩২ বেসামরিক নাগরিক রয়েছে।

২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চের মধ্যে প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের পক্ষে যুদ্ধরত ২৫ সেনা এবং সিরীয় কুর্দি বাহিনীর ২৭ জন সেনা রয়েছে। এসওএইচআর’র তথ্য মতে, যেসব এলাকায় যুদ্ধবিরতি কার্যকর নয় সেসব এলাকায় গত এক সপ্তাহে মারা গেছে ৫৫২ জন মানুষ।
সিরিয়াতে গত পাঁচ বছরে ধরে চলা সংঘর্ষে এ পর্যন্ত নিহত হয়েছে দুই লাখ ৭০ হাজারেরও বেশি মানুষ এবং গৃহহারা হয়েছে কমপক্ষে আরো কোটি মানুষ। এসওএইচআর জানিয়েছে, যুদ্ধবিরতি চলাকালীন মৃতের সংখ্যা উদ্বেগজনক হলেও দেশটিতে সহিংসতার পরিমাণ কমে এসেছে। আর এই যুদ্ধবিরতির ফলে বিভিন্ন অবরুদ্ধ এলাকাতেও ত্রাণ পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে।
এদিকে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, সিরিয়ায় শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে আগামী সপ্তাহে আরেক দফা আলোচনা শুরু হবে। যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা দ্রুত এ আলোচনা শুরুর বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেছেন।
রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ ও যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি শুক্রবার এক টেলিফোন সংলাপে সিরিয়া ইস্যুতে কথা বলেছেন। এ সময় তারা উভয়েই সিরিয়া শান্তি আলোচনার পরবর্তী দফা দ্রুত শুরুর বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন।
জাতিসংঘের উদ্যোগে সিরিয়ার এ শান্তি আলোচনা ৭ মার্চ থেকে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জাতিসংঘ জানিয়েছে, খুটিনাটি কৌশলগত কারণে এবং সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতি সংহত হওয়ার সময় দিতে ৯ মার্চ পর্যন্ত আলোচনা মুলতবি করা হয়েছে।

শেয়ার