খুলনায় চিকিৎসকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

khulna
সমাজের কথা ডেস্ক॥ চিকিৎসককে ‘লাঞ্ছনাকারী’ ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহাযোগীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করেছেন খুলনার চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জেলার সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা এ ধর্মঘট শুরু করেছেন বলে জানান বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) খুলনা জেলা সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম।

তবে ধর্মঘট চলাকালে জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বিএমএর এ নেতা বলেন, তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ হেল বাকীকে লাঞ্ছিতকারী তেরখাদা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ওয়াহিদুজ্জামান ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তার করায় এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। তাদের গ্রেপ্তার না করা পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে।

“চিকিৎসকরা মার খাবে; তারপরও সেবা দিয়ে যাবে এমনটি আর হবে না। এ অবস্থার অবসান না হতে হবে “

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. আব্দুল্লাহ হেল বাকীকে রোগী দেখার জন্য তেরখাদা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াহিদুজ্জামানের বাড়িতে যেতে বলেন কয়েকজন লোক। হাসপাতাল ছেড়ে বাড়িতে যাওয়া সম্ভব নয় জানালে চেয়ারম্যান ওয়াহিদুজ্জামানসহ বেশ কিছু লোকজন এসে আব্দুল্লাহ হেল বাকীকে মারধর করেন।

আহত অবস্থায় তাকে খুলনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বাহারুল আলম বলেন, এ ঘটনার বিএমএর পক্ষ থেকে হামলাকারীদের গ্রেপ্তারে ৭২ ঘণ্টার সময় দেওয়া হয়। ওই সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার না হওয়ায় অনির্দিষ্টকালের এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে।

শেয়ার