বিশুদ্ধ বাতাস নিতে লম্বা চুলের নাক!

nak
সমাজের কথা ডেস্ক॥ চীনে নগরবাসীদের মাথাব্যাথার কারণ হয়ে ওঠা বায়ুদূষণ সমস্যা সমাধানে জনগণকে সচেতন করতে ভিন্ন ধরনের একটি ফিল্ম তৈরি করে অদ্ভুত এক উপায় বাতলেছে একটি পরিবেশবাদী গ্রুপ। আর তা হল নাকের লম্বা চুল।

‘হেয়ারি নোজ’ নামের স্বল্প দৈর্ঘ্যের এ ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, বাতাসের ধোঁয়াশা ছাঁকতে ভবিষ্যতের মানুষদের নাকে লম্বা লম্বা চুল গজিয়েছে।

আধুনিক সব চীনা নাগরিক এমনকি কুকুরের নাকের লোমও লম্বা দেখানো হয়েছে এতে।

এর মধ্য দিয়ে জনগণকে এই বার্তাই দেওয়া হয়েছে যে, ধোঁয়া আর ধুলিভরা বেইজিংয়ে শ্বাস নিতে হলে একদিন সবার নাকের চুল লম্বা করতে হবে।

একটি সতর্ক বার্তা দিয়ে ভিডিওচিত্রটি শেষ করা হয়। সেখানে বলা হয়, মানুষ তাদের অবস্থার পরিবর্তন না ঘটালে একসময় দূষণই তাদের পরিবর্তন ঘটাবে।

ফিল্মটি নির্মাণকারী দাতব্য পরিবেশবাদী গ্রুপ ‘ওয়াইল্ডএইড’ তাদের এ উদ্যোগ লোকজনকে হাসির খোরাক জোগাবে এবং একইসঙ্গে বায়ুদূষণের বিরুদ্ধে কাজে করতে শহুরে চীনাদের উৎসাহিত করবে বলেই মনে করছে।

ওয়াইল্ডএইড এর পক্ষ থেকে বিবিসি’কে বলা হয়, তারা চায় বায়ুদূষণ সমস্যার সমাধানে জনগণ সরকারের পদক্ষেপের আশায় অপেক্ষা করা বন্ধ করুক।

ওয়াইল্ডএইডের চায়না প্রতিনিধি মে মি বলেন, “হাস্যরসের মাধ্যমে আমরা খুবই গুরুতর একটি সমস্যা নিয়ে কথা বলতে চেয়েছি। বর্তমানে আমাদেরকে এই সমস্যার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে।”

ভিডিওচিত্রে দেখানো হয়, তরুণ এক দম্পতি তাদের শিশু সন্তানকে নিয়ে বেড়াতে বেরিয়েছেন। তিনজনের নাকেই বড় বড় চুল।

চারিদিকে নানা কাজে ব্যস্ত সবার নাকেই বড় বড় চুল। অনেকে সেটার চর্চায় ব্যস্ত। এমনকি একটি কুকুরের নাক দিয়েও বড় বড় লোম বেরিয়ে আছে।

নিচে ক্যাপশনে লেখা ‘তাদের জন্য এটাই একমাত্র উপায়’।

কিন্তু এক তরুণ এভাবে না চলার সিদ্ধান্ত নেয় এবং শ্বাস নেওয়ার জন্য নাকের চুল কেটে ফেলে। ক্যাপশনে লেখা “কারণ এটা আমাকে মনে করিয়ে দিয়েছে একসময় আকাশ নীল ছিল।”

ছবির সর্বশেষ ক্যাপশন, “দূষণ তোমাকে পরিবর্তনের আগে তুমি বায়ু দূষণের পরিবর্তন ঘটাও।”

শেয়ার