এবার বাজেট সাড়ে ৩ লাখ কোটি টাকার

buget
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নতুন বাজেটের আকার সাড়ে তিন লাখ কোটি টাকা হতে পারে বলে আভাস দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি আগামী ২ বা ৯ জুন জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত এই বাজেট উপস্থাপন করবেন; পাস হবে ৩০ জুন।
প্রাক-বাজেট আলোচনা শুরুর আগের দিন বুধবার অর্থমন্ত্রী বলেন, “এখনও কোনো কিছুই ঠিক হয়নি। বৃহস্পতিবার বাজেট আলোচনা শুরু করছি। সেসব আলোচনা থেকে যেসব মতামত-পরামর্শ আসবে সেগুলোই প্রস্তাবিত বাজেটে প্রতিফলিত হবে।” এ নিয়ে ১০ম বারের মতো এবং টানা আটটি বাজেট দিতে যাচ্ছেন মুহিত।
প্রতিবারের মতো এবারও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা করছেন অর্থমন্ত্রী। বাজেটের আকার জানতে চাইলে তিনি বলেন, চলতি বাজাটের চেয়ে ১৫/১৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি (বেশি) ধরে নতুন বাজেট প্রণয়নের কাজ শুরু করা হয়েছে।
সে হিসাবে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটের আকার তিন লাখ ৪০ হাজার থেকে তিন লাখ ৫০ লাখ হাজার কোটি টাকার মতো হতে পারে বলে আভাস দেন অর্থমন্ত্রী। চলতি ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটের আকার দুই লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা।
২০১৪-১৫ অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার ছিল দুই লাখ ৫০ হাজার ৫০৬ কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেটে তা দুই লাখ ৩৯ হাজার ৬৬৮ কোটি টাকায় নেমে আসে।
২০১৩-১৪ অর্থবছরে মূল বাজেটের আকার ছিল দুই লাখ ২২ হাজার ৪৯১ কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেট দাঁড়ায় এক লাখ ৮৮ হাজার ২০৮ কোটি টাকা।
বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষের আগেই পদ্মা সেতুর কাজ শেষ হবে জানিয়ে নতুন বাজেটে এ খাতে বড় অংকের বরাদ্দ থাকবে বলে জানান অর্থমন্ত্রী
তিনি বলেন, “ইতোমধ্যে এর কাজ ৩০ শতাংশের মতো শেষ হয়েছে। বাজেটে এ খাতে মোটা অংকের বরাদ্দ রাখা হবে।”

মেট্রোরেলসহ অন্য সব ‘মেগা প্রকল্পের’ কাজও বিশেষ অগ্রাধিকার দিয়ে বাজেট বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানান মুহিত।
বাংলাদেশে অর্থবছর শুরু হয় পহেলা জুলাই। সাধারণত জুন মাসের প্রথম সপ্তাহের বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ করেন। এবার জুন মাসের প্রথম বৃহস্পতিবার ২ জুন এবং পরের বৃহস্পতিবার ৯ জুন।
অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এ দুই দিনের যে কোনো দিন অর্থমন্ত্রী সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করবেন। তার ওপর আলোচনার পর ৩০ জুন তা পাস হবে।
আওয়ামী লীগ সরকারের অর্থমন্ত্রী হিসেবে এটি হবে মুহিতের অষ্টম বাজেট। এর আগে এরশাদ সরকারের আমলে অর্থমন্ত্রী হিসেবে ১৯৮২-৮৩ এবং ১৯৮৩-৮৪ অর্থবছরের বাজেট দিয়েছিলেন তিনি। এ হিসাবে এবার ১০ম বাজেট দিতে যাচ্ছেন মুহিত। বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ১২ বার বাজেট দিয়েছেন প্রয়াত এম সাইফুর রহমান।
নতুন বাজেটকে সামনে রেখে অর্থমন্ত্রীর প্রাক-বাজেট আলোচনা বৃহস্পতিবার শুরু হয়ে চলবে ৭ মে পর্যন্ত।
অর্থমন্ত্রীর সভাপতিত্বে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষ ও রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় এসব আলোচনা হবে। প্রাক-বাজেট আলোচনার ১১টি বৈঠকের একটি সময়সূচি ও স্থান চূড়ান্ত করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

শেয়ার