সাতক্ষীরায় ডেইরি ফার্ম পরিদর্শনে এসে প্রধামন্ত্রীর প্রশংসা ॥ বাংলাদেশের মানুষ জানে কিভাবে ভাগ্য বদলাতে হয়॥ মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট

amba
আব্দুল জলিল/সিরাজুল ইসলাম, সাতক্ষীরা॥ মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য উত্তরসুরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভুয়সী প্রশংসা করে বলেছেন বাংলাদেশ সরকার জঙ্গি দমনে জিরো টলারেন্স দেখাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী চরমপন্থা দমনেও শক্ত ভূমিকা নিয়েছেন। বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধীদের চলমান বিচার প্রসঙ্গে বার্নিকাট বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র যেকোন স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ বিচার ব্যবস্থাকে সমর্থন দিচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ পরিশ্রমী মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা জানে কিভাবে ভাগ্য বদলাতে হয়।
বার্নিকাট সোমবার সাতক্ষীরার ভালুকা চাঁদপুর এবং কলারোয়ার হেলাতলা ও ব্রজবাকসায় ইউএসএইড’র সহযোগিতায় পরিচালিত কয়েকটি ডেইরি ফার্ম, দুগ্ধ শীতলীকরন কেন্দ্র ও মৎস্য হ্যাচারি প্রকল্প পরিদর্শন শেষে এক প্রেসব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন ‘বাংলাদেশের মানুষ পরিশ্রমী। তারা কিভাবে নিজেদের ভাগ্য বদলাতে হয় তা জানেন। এজন্য জেলায় অনেক মৎস্য খামার ও দুগ্ধ খামার গড়ে উঠেছে। বিপুল সংখ্যক গবাদি পশুর ফার্ম রয়েছে। দুধ, মাংস ও সর্বোপরি পুষ্টি চাহিদা মেটাতে তারা ঘরে ঘরে গরু পালন করছেন। তারা উন্নত মানের পশু পালন করে দুধ ও মাংসের উৎপাদন বৃদ্ধি করেছেন। এতে তাদের আর্থসামাজিক উন্নতি হয়েছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ১৯৭২ সাল থেকে ‘ফিড দ্য ফিউচার’ প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশে খাদ্য নিরাপত্তা সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের মানুষ হ্যাচারিতে মৎস্য উৎপাদন ও খামারে উন্নত জাতের গাভী পালন করে দুগ্ধ সংগ্রহ করে দেশের চাহিদা মেটাচ্ছেন। তারা গো খামার করেও স্বনির্ভর হয়ে উঠছেন। এতে দেশের দারিদ্র দুরীকরণ হচ্ছে। একই সাথে দেশের পুষ্টি চাহিদাও মিটছে। বাংলাদেশ অসাধারন উন্নতি করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন আমরা এতে অভিভূত হয়েছি। যুক্তরাষ্ট্র সুন্দরবনের সম্পদ রক্ষায় বিশেষ করে টাইগার রক্ষা প্রকল্পে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। তিনি ইউএসএআইডি’র সাথে বেসরকারি খাতের অংশীদারিত্ব আরও জোরদার করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এ সময় তিনি পশু পালন এবং পুষ্টি প্রকল্পসমূহ প্রত্যক্ষ করেন। তিনি তাদের সমস্যা ও সম্ভাবনার কথাও মনোযোগ সহকারে শোনেন। এছাড়া তিনি কলারোয়ার একটি মৎস্য হ্যাচারি পরিদর্শন করে খামারিদের সাথে মত বিনিময় করেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন ইউএসএআইডির মিশন পরিচালক পল সাবাটিন, অফিস পরিচালক ফরহাদ গাউসি, উপ-পরিচালক মার্ক টেগেনফেলথ, কৃষি উন্নয়ন অফিসার ড. ওসাজি সি এইমিউ, আহসানুজ্জামান খান, এবং নুরুজ্জামান প্রমুখ।

শেয়ার