হরতাল-অবরোধে বোমা হামলা ও পুলিশের কাজে বাধা॥ মণিরামপুরে বিএনপি-জামায়াতের ১৩২ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট

mamla
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ হরতাল চলাকালে যশোরের মণিরামপুরে পুলিশের কাজে বাধা, ট্রাকে অগ্নিসংযোগ ও বোমা হামলা মামলায় বিএনপি-জামায়াতের ১৩২ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মণিরামপুর থানার এসআই শিকদার মতিয়ার রহমান যশোর আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেছেন।
অভিযুক্তরা হলেন, মণিরামপুর উপজেলা যুবদলের সভাপতি নিস্তার ফারুক, মুছা, মশিয়ার রহমান, উপজেলা বিএনপির সভাপতি শহিদ ইকবাল, আব্দুল হাই, খাইরুল ইসলাম, লাভলু, রবিউল ইসলাম, মোতাহারুল ইসলাম রিয়াদ, রনি, ইমরান হোসেন, পলাশ, মোস্তফা, ইস্্রাফিল, আব্দুর রাজ্জাক, গোলাম, রিপন, ওহাব আলী, বুলবুল, সৈয়দ আলী, আকছেদ আলী, ফারুক হোসেন, মোনায়েম মোড়ল, মোশারেফ হোসেন মেম্বর, মোস্তাসিন বিল্লাহ, সিরাজুল ইসলাম, ইউসুফ আলী মেম্বর, বখতিয়ার হোসেন, আহম্মদ আলী, রবিউল ইসলাম, মোমিন, হোসেন আলী, বাশার, আজিজুর রহমান, রুবেল, শহিদুল ইসলাম, শফিয়ার রহমান, আব্দুস সবুর, শাহাদত হোসেন, জমশেদ আলী, ফারুক হোসেন, মনিরুল ইসলাম, লুৎফর রহমান, নজরুল ইসলাম, বাবর আলী, আব্দুর রউফ, ইসমাইল হোসেন,আতাউর রহমান, ইয়াকুব আলী, ইসমাইল হোসেন, ইব্রাহিম মোড়ল, শফিকুল ইসলাম, আব্দুল কাদের, শফিকুল ইসলাম, ওজিয়ার রহামান, মোবাশ্বের হোসেন, আশিক বিল্লাহ, আবুল হোসেন গাজী, আবুল কাশেম, এরশাদ আলী, বিল্লাল হোসেন, ইমদাদুল্লাহ, আবু সাইদ মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ, মিজানুর রহামান, হাতেম আলী, ইসমাইল হোসেন, শফিকুল ইসলাম, আবুল হাসান লাভলু, মোমিন, আবুল খায়ের, হাসানুর রহমান, আবুল বাশার, আব্দুল কুদ্দুস, এরশাদ, শেখ শামসুর রহমান ও অভয়নগরের আবু মুছা।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি হরতালের নামে মণিরামপুর ডিগ্রি কলেজের সামনে বিএনপি জামায়াতের সন্ত্রাসীরা একটি ট্রাক থামিয়ে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থালে পৌঁছালে ওই সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েকটি বোমা হামলা চালায়।
এ ঘটনায় এসআই সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে বিএনপি নেতা নিস্তার ফারুকসহ ৪৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও অনেকের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই ১৩২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেয়া হয়েছে।

শেয়ার