যশোর সদরের ইউপি নির্বাচন॥ নৌকার টিকিট পেলেন প্রার্থীরা, উৎসব-উচ্ছ্বাস

Sahi
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সদরের ১৫ ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষর শেষে গতকাল কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ এই প্রার্থীতা ঘোষণা করে। পরে যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার বিমানে যশোর এসে দলের প্রার্থীদের মধ্যে নৌকার টিকিট তুলে দেন। এরআগে দলের মনোনীত প্রার্থীরা এই টিকিট নিতে দুপুর থেকেই কর্মী সমর্থক নিয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জড়ো হন। দলের টিকিট পাওয়ার খবরে তারা উৎসবে মেতে উঠেন। এক পর্যায়ে সেখান থেকে তারা শাহীন চকলাদারকে শুভেচ্ছা জানাতে বিমানবন্দরে ছুটে যান। পথে পথে মিছিল ও স্লোগান দেন। অনেকে ব্যানার নিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ফুল ছিটিয়ে আনন্দ প্রকাশ করেন। জেলা ও উপজেলার শীর্ষ নেতারা বিমানবন্দরে শাহীন চাকলাদারকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে সেখান থেকে কর্মীদের সঙ্গে দলের কার্যালয়ে আসেন শাহীন চাকলাদার। তিনি এসময় কর্মীদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু উন্নয়নের এই ধারায় বাধাগ্রস্ত করতে একটি চক্রান্তও চলছে। চক্রান্তকারীদের উপযুক্ত জবাব দিতে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জয়ী করতে মাঠে থাকতে হবে। নেত্রীকে সব কয়টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উপহার দেওয়ার পর মাঠ ছাড়তে হবে।
শাহীন চাকলাদার বলেন, নৌকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের যেসব নেতাকর্মী অবস্থান নেবেন তারা আদর্শ বিরোধী। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তাদের বিশ্বাস নেই। এমন বিশ্বাসঘাতকদের আমাদের চিনে রাখতে হবে। মনে রাখতে হবে আওয়ামী লীগ করবেন আবার নৌকার বিরুদ্ধে দাঁড়াবেন এমন হতে পারে না। এমন যারা করবেন তারা এলাকায় থাকতে পারবেন না। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সৈনিকরা তা করতে দেবে না। বিএনপির উদ্দেশ্যে শাহীন চাকলাদার বলেন, আপনারা জাতির সাথে বেইমানি করেছেন। সংবিধান বিরোধী তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি তুলে জাতীয় নির্বাচন বয়কট করেছেন। শুধু বয়কট করেননি পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ পুড়িয়েছেন। এখন আবার নির্বাচন করছেন। এই দ্বিমুখি অবস্থানের কারণে জনগণ আপনাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন। সম্প্রতি পৌরসভা নির্বাচনে তা প্রমাণিত হয়েছে।
শাহীন চাকলাদারের বক্তব্যের আগে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদক আব্দুল মজিদসহ জেলা আওয়ামী লীগ নেতারা বক্তব্য রাখেন। পরে একে একে মনোনয়ন পাওয়া নেতাদের মাইকে নাম ঘোষণা করা হলে তারা শাহীন চাকলাদারের হাত থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষর করা মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। প্রিয় নেতার নাম ঘোষণার সাথে সাথে উল্লাসে মেতে উঠেন কর্মীরা। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী রায়হান, মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা খয়রাত হোসেন, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি মেহেদী হাসান, সদর উপজেলা শাখার সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বিপুল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম মাহামুদ হাসান বিপু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, সহ-সভাপতি নিয়ামত উল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার