পেশাগত সনদ পাবেন ধাত্রীরাও

dhatri
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নার্সিং পেশার পাশাপাশি ধাত্রীবিদ্যায় (মিডওয়াইফারি) ডিগ্রিধারীদেরও পেশাগত সনদ দেবে সরকার। এ লক্ষ্যে ‘বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল আইন ২০১৬’ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ আইনের খসড়া অনুমোদন পায়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান, সামরিক শামনামলে প্রণীত ‘বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল অর্ডিনেন্স ১৯৮৩’ রহিত করে কিছু সংশোধনীসহ এ আইন করা হচ্ছে।
নতুন আইনে নার্সিংয়ের সঙ্গে ধাত্রীবিদ্যা (মিডওয়াইফারি) যুক্ত করা হচ্ছে জানিয়ে শফিউল বলেন, এ আইন পাস হলে ২৪ সদস্যের কাউন্সিল গঠন করা হবে।
“নার্সিং ও ধাত্রীবিদ্যায় যারা ডিগ্রি নেবেন এই কাউন্সিল তাদের স্বীকৃতি দেবে। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) মতো এটা কাজ করবে।”
বিদেশ থেকে যারা নার্সিং ও ধাত্রীবিদ্যায় ডিগ্রী পাবেন, এ কাউন্সিল তাদেরও স্বীকৃতি দিতে পারবে বলে জানান সচিব।
তিনি বলেন, নার্স, ধাত্রী ছাড়াও তাদের সহযোগীদের সরকারের কাছে নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধন ছাড়া নার্স, ধাত্রী ও তাদের সহযোগীদের কাজ নিষিদ্ধ করা হয়েছে আইনে।
“স্বীকৃতি ছাড়া নিজেকে নার্স, ধাত্রী বা সহযোগী হিসেবে পরিচয় দিলে তিন বছর কারদণ্ড, এক লাখ টাকা অর্থদন্ড বা উভয়দন্ডে দন্ডিত হবেন।”
এছাড়া ভুয়া পদবী ব্যবহার করলে এক বছরের কারাদন্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হবে বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান।
তিনি বলেন, আইন বহির্ভূত কাজ করলে নার্স ও ধাত্রীদের নিবন্ধন বাতিল করা হবে। নিবন্ধন বাতিলে কেউ সংক্ষুব্ধ হলে সরকারের কাছে আপিল করতে পারবে।

শেয়ার