এক-এগারোর কুশীলবদের চিহ্নিতে কমিশন গঠনের দাবি দুই মন্ত্রীর

hani

সমাজের কথা ডেস্ক॥ সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়কার ঘটনা তদন্তে একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে দিয়ে কমিশন গঠনের দাবি সংসদে তুলেছেন দুজন মন্ত্রী।
ওই সময় যাচাই ছাড়া ডিজিএফআইয়ের ‘সরবরাহ’ করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘দুর্নীতির’ খবর প্রকাশের কথা স্বীকারকারী ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামের বিচারও দাবি করেছেন তারা।
রোববার সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে এই দাবি তোলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমও।
ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মেনন বলেন, “মাহফুজ আনামের স্বীকারোক্তির মধ্য দিয়ে এক/এগারোর শাসনে রাজনীতিবিদদের ওপর কী ধরনের অপপ্রচার চালানো হয়েছিল তা বেরিয়ে এসেছে। আমি বলব কেবল একজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নয়, ওয়ান-ইলেভেনের সমস্ত ঘটনা বোঝার জন্য তদন্ত কমিশন গঠন করতে হবে।
“সুপ্রিম কোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে দিয়ে একটি তদন্ত কমিশন গঠন করা হোক।”
এরপর আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য নাসিম বলেন, “এক/এগারোতে কী হয়েছিল, তার তদন্ত হওয়া উচিত। রাশেদ খান মেনন কমিশন গঠনের কথা বলেছেন। যারা বড় বড় কথা বলেন তাদের মুখোশ উন্মোচন হওয়া উচিত। কারণ নাগিন এখনও নিঃশ্বাস ফেলছে।”
সম্প্রতি একটি টেলিভিশন আলোচনায় মাহফুজ আনাম এক প্রশ্নের মুখে বলেন, ২০০৭-০৮ সালে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআইয়ের ‘সরবরাহ করা খবর’ যাচাই না করে ছাপানো ছিল তার সাংবাদিকতা জীবনের ‘বিরাট ভুল’।
এরপর দেশব্যাপী আওয়ামী লীগের সমর্থক ও নেতা-কর্মীরা তার বিরুদ্ধে প্রায় একশ’ মামলা করেছেন, এর মধ্যে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগও রয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সম্প্রতি এই বিষয়ে কথা বলেছেন। সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক আমলে তাকে ও খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে বিতাড়ণের ষড়যন্ত্রের কথাও তুলে ধরেন তিনি।
ওই সময়ে কারাবন্দি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনও সম্প্রতি এক আলোচনা সভায় বক্তব্যে ওয়ান-ইলেভেনের কুশীলবদের বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

জরুরি অবস্থা জারির পর সেনা হস্তক্ষেপে গঠিত ফখরুদ্দীন আহমদ নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে ডেইলি স্টারের ‘সমর্থন’ নিয়েও ব্যাপক সমালোচনা রয়েছে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম সংসদে বলেন, “মাহফুজ আনাম এক সাংবাদিক। রাজনীতিবিদ ভুল করলে জেল হয়, সরকারি কর্মচারী ভুল করলে জেল হয়। উনি ভুল করে বললেন, ‘আই অ্যাম সরি’।সরি বলে সব ভুলে গেলেন।
“যারা নির্যাতিত হয়েছে তারা সুস্থ হয়ে যাবে? রাজনীতিবিদদের চরিত্র হরণ করা হল। ছাত্রদের হত্যা করা হল। আর উনি সরি বললেন।”

শেয়ার