শীর্ষ সন্ত্রাসী ম্যানসেল বাহিনীর ‘প্রধান সেনাপতি’ নজুকে আটকের গুঞ্জন

atok
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর শহরের ষষ্ঠীতলা এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ম্যানসেল বাহিনীর ‘প্রধান সেনাপতি’ নজরুল ইসলাম নজুকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা আটক করেছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। তবে তাকে আটকের কথা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়নি। সন্ত্রাসী নজু শহরের ষষ্ঠীতলা সুন্দ্রেনাথ রোডের তরকারি বিক্রেতা চুন্নু মিয়ার ছেলে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহম্মেদের ‘পোষ্য সন্ত্রাসী’ ম্যানসেলের নেতৃত্বে তার বাহিনীর ‘প্রধান সেনাপতি’ নজুসহ কয়েকজন এমএম কলেজের শহীদ মিনারের প্রথম প্রহরে বোমা বিস্ফোরণ ও গুলিবর্ষণ করে। বিষয়টি ছবিসহ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। এরপর গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে শহরের রেলস্টেশন এলাকা থেকে সাদা পোষাকধারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোক পরিচয়ে তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এমন গুঞ্জন চলছে। বুধবার সকাল ৯টার দিকে তার পিতা চুন্নু মিয়াও এলাকার অনেকের কাছে ছেলেকে ধরে নিয়ে যাবার কথা বলেছেন। তবে এব্যাপারে কথা বলার জন্য তাকে একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি।
উল্লেখ্য, ম্যানসেলের নেতৃত্বে নজুসহ ডজন দুয়েক সন্ত্রাসী দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় চাঁদাবাজি, অস্ত্র, বোমা, ছিনতাই ও মাদকসহ বিভিন্ন ধরনের ‘অপরাধে’র সাথে জড়িত। ইতিপূর্বে ওই বাহিনীর আরেক সদস্য ডলার ডাকাতি চেষ্টাকালে ‘গণপিটুনি’তে খুন হয়। কিন্তু নজু দৌঁড়ে পালিয়ে যায়। এরপর থেকে আবারো নজুসহ ম্যানসেল বাহিনীর সকল সদস্য বিভিন্ন অপরাধের জড়িয়ে পড়ে।
কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইলিয়াস হোসেন সাংবাদিকদের জানান, নজু নামে কাউকে আটক করা হয়নি। একই দাবি করেছেন ডিবি পুলিশের ওসি আলী আহমেদ হাশমী। অপরদিকে, সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ টিএসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, এ বিষয় সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না।
জেলা পুলিশের মুখপাত্র সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) মীর মোহাম্মদ শাফিন মাহমুদ বলেন, নজু নামে কাউকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোন সদস্য আটক করেনি।

শেয়ার