যশোরের প্রেস শ্রমিক শহিদুল ইসলাম খুনের চার্জশিট শিগগিরই

mamla
লাবুয়াল হক রিপন॥
যশোরের প্রেস শ্রমিক শহিদুল ইসলাম (৩২) খুনের শিঘ্রই চার্জশিট দিতে যাতে যাচ্ছে পুলিশ। হত্যাকান্ডের কারণ ও ‘হত্যাকারীরা চিহ্নিত হওয়ায় মামলার তদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত করছেন তদন্ত কর্মকর্তা। পুলিশ ও মামলার বাদী পক্ষ থেকে এমন তথ্য মিলেছে। মামলার এজাহারভুক্ত চার আসামির মধ্যে তিনজনকে অব্যাহতি ও একমাত্র আশরাফুলকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে হবে বলেও এসব সূত্র দাবি করেছে।
মামলা সূত্র মতে, যশোর শহরতলীর ঝুমঝুমপুর বিসিক এলাকার ইউনিক প্রিন্টার্সে চাকরি করতেন সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম। তার সহকর্মী ছিলেন আশরাফুল ইসলাম। তার (আশরাফুল) বাড়ি রাজবাড়ি জেলার পাংশা উপজেলার হাশিমপুর গ্রামে। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বছরের ২ নভেম্বর সকালে তাদের দু’জনের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। উত্তেজিত হয়ে দু’জনের মধ্যে হাতাহাতি হয়। কিন্তু ওই প্রিন্টার্সের ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান তাৎক্ষণিক বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। কিন্তু আশরাফুল এতে সন্তুষ্ট না হয়ে শহিদুল ইসলামকে খুন করার জন্য পরিকল্পনা করতে থাকেন। প্রতিদিনের ন্যায় গত ২ নভেম্বর সন্ধ্যায় দু’জনেই ডিউটি করার জন্য ইউনিক প্রিন্টার্সে আসে। রাত ১০টার দিকে ম্যানেজারের কক্ষে থাকা কাগজ কাটা চাকু এনে শহিদুলকে ছুরিকাঘাত করে আশরাফুল। শহিদুলের চিৎকারে ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমান, মালিক আব্দুল কাদের এবং তৌহিদুর এগিয়ে এসে শহিদুলকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১২টা ১৫ মিনিটের দিকে শহিদুল ইসলাম মারা যান। খবর পেয়ে বাড়ি থেকে শহিদুলের ভাই ওয়াহিদুজ্জামান আসে। এদিকে, ওইদিন রাতেই পুলিশ আশরাফুল ইসলামকে আটক করে। একই সাথে হত্যাকা-ে ব্যবহৃত চাকু উদ্ধার করে পুলিশ।
এঘটনায় নিহতের ভাই ওয়াহিদুজ্জামান বাদী হয়ে আশরাফুল ইসলাম, প্রেসের দুই মালিক আব্দুল কাদের, তৌহিদুর রহমান এবং ম্যানেজার মোস্তাফিজুর রহমানের নামে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (বর্তমানে বদলি) সিকদার আকক্ছা আলী নিজেই মামলাটি তদন্ত করেন। বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, তুচ্ছ ঘটনায় দু’জনের মধ্যে বিরোধের কারণে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আশরাফুল ইসলাম হত্যার উদ্দেশে শহিদুল ইসলামকে আঘাত করে। এছাড়া খুব অল্প সময়ের মধ্যেই এ মামলার তদন্ত শেষে চার্জশিট দেয়া হবে।

শেয়ার