‌যশোরে মধ্যরাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল

ekushe
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহর। যশোরের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, এমএম কলেজের অধ্যক্ষ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন শহীদ মিনারে। এরপর গৌরবের মিনার উন্মুক্ত হলো সর্বসাধারণের জন্য। মানুষের ঢল নামলো এমএম কলেজস্থ যশোরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। সেই যে শুরু হলো, এর যেন আর শেষ নেই। বিরামহীন চলে শ্রদ্ধা জানানো।
রাত ১২ টা ১ মিনিটে শ্রদ্ধা জানানো শুরু হলেও ১১ টা থেকেই ভাষা প্রেমীরা জড়ো হতে থাকেন এমএম কলেজের গেটে। রাতে যারা এসেছিলেন, তারা বেশির ভাগই আসেন বিভিন্ন সংগঠনের হয়ে। তাঁদের হাতে ছিল ফুলের ডালি। সবার মুখে ছিল একই সুর আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/ আমি কি ভুলিতে পারি। শহীদ মিনার থেকে মাইকে সেই সুর বেজে উঠছিলো।
একুশের প্রথম প্রহরে ১২টা ১ মিনিটে সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ আঙিনায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পু®পস্তবক অর্পণ করেন যশোর জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর, সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মিজানুর রহমান, যশোর পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন ও সম্পাদক এস এম তৌহিদুর রহমান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের নেতৃবৃন্দ, যশোর ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশন, দৈনিক সমাজের কথা সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
এদিকে, গতকাল দিনভর প্রস্তুতি চলে ভাষা দিবস উদযাপনে। সন্ধ্যার পর থেকে ফুলের দোকানে আগে থেকে অর্ডার দেয়া পুষ্পস্তবক নেওয়ার জন্য ভিড় বাড়ে। রাত বাড়ার সাথে সাথে শহরের রাস্তায় শহীদ মিনার মুখী মানুষের পদচারণা বাড়তে থাকে।

শেয়ার