পাকিস্তানে নতুন সরকারি স্কুল উড়িয়ে দিয়েছে জঙ্গিরা

paki

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাকিস্তানের দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তান অঞ্চলে সদ্য নির্মিত একটি সরকারি স্কুলের একটি অংশ বিস্ফোরণে উড়িয়ে দিয়েছে জঙ্গিরা।
শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে পাকিস্তান তালেবানের একটি শাখার মুখপাত্র শনিবার জানিয়েছেন।
দেশটিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হামলার এটি সর্বশেষ ঘটনা। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী অধ্যুষিত প্রত্যন্ত ওই এলাকাটিতে ঘটানো বিস্ফোরণটিতে কেউ আঘাত না পেলেও ঘটনাস্থল থেকে ১৮ শ্রমিককে ধরে নিয়ে গেছে জঙ্গিরা।
‘সাজনা’ গোষ্ঠী নামে পাকিস্তান তালেবানের একটি শাখার মুখপাত্র আজমান তারিক এসব কথা জানিয়েছেন। গোষ্ঠীটি হামলার দায় স্বীকার করেছে।
তিনি বলেন, “স্কুলটি সরকারি স্থাপনা হওয়ার আমরা সেটি উড়িয়ে দিয়েছি।”
ধরে নেওয়া শ্রমিকদের পরে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন তিনি। সরকারি লক্ষ্যগুলোতে নিয়মিত হামলা চালানো হবে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি।
দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানের কর্মকর্তারা জানান, টিয়ারজা তেহশিলে চালানো ওই বিস্ফোরণে স্কুলের বালিকা অংশের ভবনটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পাশাপাশি নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত কিছু ভারি যন্ত্রপাতিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
শনিবার অন্য একটি ঘটনায় উত্তরের মোহমান্দ নৃগোষ্ঠীর এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে জঙ্গিদের গোলাগুলিতে পাঁচ জঙ্গি নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
গত মাসে খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের বাচা খান বিশ্ববিদ্যালয়ে চালানো এক জঙ্গি হামলায় ২০ জন নিহত ও বহু আহত হন। এর প্রায় ১৩ মাস আগে নিকটবর্তী শহর পেশোয়ারে সামরিক বাহিনী পরিচালিত একটি স্কুলে তালেবান জঙ্গিদের হামলায় ১৩৪ জন ছাত্র নিহত হয়েছিলেন।

শেয়ার