যশোরে অগ্রণী ব্যাংক ডাকাতি॥ জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি

mamla
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে অগ্রণী ব্যাংক ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে হোসেন আলী। তিনিসহ আরো ১২/১৩জন ওই ডাকাতি ঘটনার সাথে জড়িত ছিলেন বলে আদালতকে জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মৃত্যুঞ্জয় মিস্ত্রি এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন।
আসামি হোসেন আলী সরদার যশোর সদর উপজেলার রামনগর গ্রামের আব্দুল গফুর ওরফে গফুর ডাকাতের ছেলে।
আদালত সূত্র মতে, গত বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর রাতে যশোর শহরতলীর রাজারহাট বাজারের অগ্রণী ব্যাংকের জানালার গ্রিল কেটে একদল ডাকাত ভিতরে প্রবেশ করে। অস্ত্রের মুখে ওই ব্যাংকের দুইজন নৈশ প্রহরীকে মারপিট করে বেঁধে রাখে। এরপর গ্যাস কার্টার দিয়ে ব্যাংকের ভল্ট কেটে ২১ লাখ ৮ হাজার ৭০৯টাকা, ১৩ হাজার ৩শ’ টাকার প্রাইজ বন্ড, ৫ রাউন্ড বন্দুকের গুলি এবং সিসি টিভির যন্ত্রাংশ লুট করে নিয়ে যায়।
এ ঘটনার পরদিন ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নারায়ন চন্দ্র পাল বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। প্রথমে থানা এবং পরে সিআইডি পুলিশ মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায়। তদন্তকালে সিআইডি পুলিশের এসআই তৌহিদুল ইসলাম ডাকাতির সাথে জড়িত সন্দেহে গত বুধবার ভোর রাতে হোসেন আলী সরদারকে আটক করেন।
গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করা হলে ডাকতির সময় হোসেন আলী পাহারাদার হিসেবে কাজ করেছিল বলে আদালতে জবানবন্দিতে উল্লেখ করেছেন।

শেয়ার