মহেশপুর সীমান্তে হত্যা মামলার আসামিসহ দু’জনের লাশ উদ্ধার ॥ যুবককে ডেকে নিয়ে হত্যার অভিযোগ

shimanto
মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্তে কাঁটা তাঁরের বেড়ার পার্শ্ব থেকে হত্যা মামলার এক আসামিসহ দু’জনের লাশ পাওয়া গেছে। এরমধ্যে একজনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার অভিযোগ করেছেন স্বজনরা। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।
এলাকাবাসি ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, মহেশপুর সীমান্তের সামন্তা এলাকার আনু মোল্লার পুত্র হাকিমুল (২২) গত রোববার রাত থেকে একটি পালসার মোটরসাইকেলসহ নিখোঁজ ছিল। বৃহস্পতিবার সকালে তার লাশ নেপা ইউনিয়নের সেজিয়া হলদি পাড়া গ্রামের মাঠের গম ক্ষেত থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত হাকিমুলের বড় ভাই শুকুর আলী জানান তার ভাইকে রোববার এশার আযানের সময় সামন্তা ও লালপুরের দুই ছেলে এসে ডেকে নিয়ে যায়। সে পালসার মোটরসাইকেল নিয়ে তাদের সাথে যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ ছিল। পরে বৃহস্পতিবার তার লাশ পাওয়া যায়। তিনি জানান রোববার রাতেই তাকে গলাই রশি পেচিয়ে হত্যা করা হয়েছে। লাশের গায়ে পোকা ধরে গেছে। এদিকে বাগাডাঙ্গা বিজিবির নায়েক সুবেদার নুর আমীন জানান, মহেশপুর থানার একটি হত্যা মামলার আসামি কাজীরবেড় গ্রামের আকবার আলীর পুত্র আসাদ (২৫) ৬ মাস যাবত ভারতে আতœগোপনে ছিল। বৃহস্পতিবার সকালে তার লাশ ভারত সীমান্তের কুলগাছি নামক স্থানে কাটা তাঁরের বেড়ার কাছে পড়েছিল। পরে ভারতের শীল বাড়িয়া ক্যম্পের বিএসএফ সদস্যরা তার লাশ নিয়ে গেছে। এলাকাবাসি জানান আসাদ গরু চোরাকারবারী ও মাদক পাচারের সাথে জড়িত। মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম বিল্পব জানান, তনি নিজেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। হাকিমুলের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঝিনাইদহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হবে বলে জানান তিনি।

শেয়ার