‘ওবামা দাসদের বংশধর’

obama
সমাজের কথা ডেস্ক॥ গত বুধবার জাপানের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের সংসদ সদস্য ক্যাজুয়া মারেইমা উচ্চ কক্ষ সাংবিধানিক প্যানেলের বৈঠকে বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র একজন কালো ব্যক্তিকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করেছে যেটা অকল্পনীয়। তিনি আরও বলেছিলেন, প্রেসিডেন্ট ওবামা আসলে দাসদের বংশধর। ওবামা সম্পর্কে এ ধরনের বর্ণবাদী মন্তেব্যের কিছুক্ষণ পর সংবাদ সম্মেলনে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি ।
তিনি বলেন, ‘আমার মন্তব্যের জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। এটি একটি অনিচ্ছাকৃত মন্তব্য। আসলে আমি বলতে চেয়েছিলাম যে ওবামা হলো আফ্রিকান বংশোদ্ভূত প্রথম কোন মার্কিন প্রেসিডেন্ট, যার বাবা কৃষ্ণাঙ্গ এবং মা শ্বেতাঙ্গ।’
এ বিষয়ে জাপানের টেম্পল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক কেইল ক্লেবল্যান্ড বলেন, এটা খুব দু:খজনক যে জাপানের কিছু নেতা এখনও এই ধরনের বর্ণবাদী মানসিকতা পোষণ করেন। মারেইমার মন্তব্য তাই নির্দেশ করে। এটি জাপানের রাজনৈতিক মানসিকতার সীমাবদ্ধতা। এটি যে কেবল একটি বর্ণবাদী মন্তব্য তা নয়, বরং তার এই মন্তব্য এটাই প্রমাণ করে যে জাপান এখনও বর্ণবাদী মানসিকতা পোষণ করে। তিনি বলেন, বৈষম্য এবং জাতিগত বৈচিত্রের উপর পরিপূর্ণ শিক্ষার অভাব।
বর্ণবাদী মন্তব্যের জন্য এর আগেও সিনাটারো ইশিহারো নামের একজন প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ সমালোচিত হয়েছিলেন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের পর গত ২০১৪ সালে তিনি অবসর গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেছিলেন, চীন এবং কোরিয়রা জাতিগতভাবে জাপানী। এছাড়াও তিনি নারী, সমকামিতা, এমনিকি নানকিং গণহত্যা নিয়ে বিভ্রান্তিকর মন্তেব্যের পরও জাপানের রাজনীতিতে প্রায় ৫০ বছর অধিষ্টিত ছিলেন।

শেয়ার