সিরিয়ায় যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান রাশিয়ার

siry
সমাজের কথা ডেস্ক॥ সিরিয়ায় হাসপাতালে বোমা হামলায় বেসামরিক মানুষ হতাহতের ঘটনা ‘যুদ্ধাপরাধ’ এমন অভিযোগ দৃঢ়ভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে রাশিয়া।
ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, “যারা এ ধরনের কথা বলছে তারা তাদের বক্তব্যের সপক্ষে প্রমাণ হাজির করতে পারবে না।”
সোমবার সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুরস্ক সীমান্তবর্তী আজাজ শহরের বিদ্রোহী অধিকৃত শহরে পাঁচটি চিকিৎসা স্থাপনা ও দুটি স্কুলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় প্রায় ৫০ জন বেসামরিক মানুষ নিহত হয়। দক্ষিণের মারাত আল-নুমানের অন্তত দুইটি হাসপাতালেও বিমান হামলা হয়েছে।
এ ধরনের স্থানগুলোকে ‘ইচ্ছাকৃতভাবে হামলার লক্ষ্য বানানো’ যুদ্ধাপরাধের শামিল বলে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ। তুরস্ক এবং ফ্রান্সও রাশিয়ার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ করেছে।
তুরস্ক, ফ্রান্স ভিত্তিক আন্তর্জাতিক দাতব্য চিকিৎসা সংস্থা মিতস সঁ ফ্রঁতিয়ে (এমএসএফ) এবং সিরিয়ার বিদ্রোহীরা এ হামলার জন্য রাশিয়া ও সিরিয়ার সরকারি বাহিনীকে দায়ী করেছে। হামলা হওয়া মারাত আল-নুমানের একটি হাসপাতাল এমএসএফ পরিচালিত ছিল।
এমএসএফ’ এর প্রেসিডেন্ট মিগু তেহজিয়ান রয়টার্সকে বলেন, এজন্য ‘হয় সিরিয়া সরকার না হয় রাশিয়া দায়ী’।
জবাবে ক্রেমলিনের মুখপাত্র পেসকভ বিবিসি’কে বলেন, “ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিরীয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোনো প্রমাণ পেলে শুধুমাত্র সেটিই গ্রহণ করবে রাশিয়া। আমাদের হাতে থাকা প্রমাণ বরং উল্টো কথা বলছে।”
এর আগে মস্কোতে অবস্থিত সিরিয়ার রাষ্ট্রদূত রিয়াদ হাদ্দাদ এ হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেন। যে অভিযোগকে ‘স্পষ্টতই মিথ্যা’ বলে উড়িয়ে দেয় পেন্টাগন।

শেয়ার