আজ থেকে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু॥ যশোর বোর্ডে পরীক্ষার্থী ১লাখ ৪৯ হাজার ২শ’ ১১ জন

jessore education board
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আজ থেকে সারা দেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। দেশের আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীন শুরু হচ্ছে এই পরীক্ষা। সকাল ১০ টা থেকে এ পরীক্ষা শুরু হবে। যশোর বোর্ডে অংশ নেবে এক লাখ ৪৯ হাজার ২১১ শিক্ষার্থী। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রথম দিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) ১ম পত্র, সহজ বাংলা ১ম পত্র, বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সাংস্কৃতি ১ম পত্র, কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ, ভোকেশনালে বাংলা-২ (সৃজনশীল) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
এ বছর আট বোর্ডে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীর মোট সংখ্যা সংখ্যা ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৫শ’২৩ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৮ লাখ ৪২ হাজার ৯শ’৩৩ এবং ছাত্রী ৮ লাখ ৮ হাজার ৫শ’৯০ জন। এ বছর নিয়মিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৪ হাজার ৯শ’২৭ জন। অনিয়মিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ লাখ ৭৩ হাজার ৭শ’১৪ জন।
যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের আওতায় এ বছর ১লাখ ৪৯ হাজার ২শ’ ১১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেবে। পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৭৬ হাজার ১শ’ ৭৮ জন ছাত্র ও ৭৩ হাজার ৩৩ জন ছাত্রী। ছাত্রীর তুলনায় ছাত্র পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ১শ’ ৪৫ জন বেশি। অনিয়মিত হিসেবে এবছর পরীক্ষার্থী রয়েছে ১৯ হাজার ৪শ’ ২০ জন। যশোর শিক্ষা বোর্ড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এদিকে পরীক্ষা বিষয়ে যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মজিদ জানান, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা গ্রহণের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র জানিয়েছেন, যশোর বোর্ডের আওতায় ১০ জেলার ২ হাজার ৪শ’ ৮৯টি বিদ্যালয়ের ২শ’ ৪৩টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে মোট পরীক্ষার্থীর অর্ধেকের বেশি মানবিক বিভাগ থেকে পরীক্ষায় অংশ নেবে। এ বিভাগে এ বছর মোট পরীক্ষার্থী রয়েছে ৭৭ হাজার ২৯ জন। শতকরা হিসেবে ৫১ দশমিক ৬২ভাগ। বিজ্ঞান বিভাগে ৩২ হাজার ১শ’২৮ জন। শতকরা হিসেবে ২১ দশমিক ৫৩ ভাগ। বাণিজ্য বিভাগে মোট পরীক্ষার্থী ৪০ হাজান ৫৪ জন। শতকরা হিসেবে ২৬ দশমিক ৮৪ ভাগ।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র জানান, পরীক্ষা সুষ্ঠু ও নকলমুক্ত করার লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে ঘোষিত পরীক্ষার রুটিন অনুযায়ী এ বছরই প্রথম পরীক্ষায় প্রতি বিষয়ের এসসিকিউ (বহুনির্বাচনী বা টিক বা নৈর্ব্যত্তিক) অংশ আগে অনুষ্ঠিত হবে। এমসিকিউ অংশের পরীক্ষা নেয়ার পর লিখিত (সৃজনশীল/ রচনামূলক বা তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি বিষয়ের এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষার মধ্যে ১০ মিনিট বিরতি থাকবে। বিগত বছরগুলোতে আগে লিখিত পরে এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হত।
তিনি জানান, পরীক্ষা কেন্দ্রে শুধুমাত্র কেন্দ্র সচিব মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। অন্য কোন ব্যক্তি, পরীক্ষার্থী কেন্দ্রে মোবাইল ফোন আনতে বা ব্যবহার করতে পারবেন না। এছাড়া পরীক্ষার্থীরা সাধারণ সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে কিন্তু ট্রান্সপারেন্ট ফাইল/ব্যাগসহ পরীক্ষার্থীগণ পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশ করতে পারবে না।
উল্লেখ্য, বর্তমানে প্রতিটি পত্রে মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে ৬০ নম্বর সৃজনশীল, ৪০ নম্বর এমসিকিউ প্রশ্নে হয়। যেসব বিষয়ে ব্যবহারিক অংশ আছে, সেখানে এমসিকিউ অংশ ৩৫ নম্বরের। পরীক্ষার্থীকে বহুনির্বাচনী, সৃজনশীল বা রচনামূলক ও ব্যবহারিক অংশে পৃথকভাবে পাস করতে হবে বলে জানিয়েছেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র।
শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঘোষিত সূচি অনুযায়ী, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ৮ মার্চ পর্যন্ত এসএসসির এমসিকিউ ও তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা হবে। আগামী ৯ মার্চ থেকে ১৪ মার্চ হবে ব্যবহারিক পরীক্ষা।

শেয়ার