আখ রোপণ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ব্যর্থতা॥ মোবারকগঞ্জ চিনি মিলের এমডি দেলোয়ারকে সতর্কীকরণ চিঠি

akh
নয়ন খন্দকার, কালীগঞ্জ॥ আখ রোপণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ায় ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের মোবারকগঞ্জ সুগার মিলের (মোচিক) ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেনকে সতর্কীকরণ চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন।
গত ২৬ জানুয়ারি এডিএম/এসএফ/২০/৭৭/ (১৮)/৯৯ নং স্মারকে কর্পোরেশনের সচিব এএসএম আবদার হোসেন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে ২০১৫-১৬ মৌসুমে মোবারকগঞ্জ সুগার মিলে ১০ হাজার একর জমিতে আখ রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু এ পর্যন্ত ৩ হাজার ৩৮৯ একর জমিতে আখ রোপন হয়েছে। যা লক্ষমাত্রার ৩৩.৮৯ শতাংশ মাত্র। চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, আখ রোপন মৌসুম শুরু হওয়ার পূর্বেই লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ি আখ রোপনের জন্য বিভিন্নভাবে পরামর্শ/ নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এছাড়া সময়মত আখের মূল্য বৃদ্ধি, আখের মূল্য প্রদান, যথা সময়ে চাষীদের সার প্রদানসহ সকল প্রকার সহযোগিতা করা সত্বেও আখ রোপনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। এতে তিনি তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছেন। ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে মিলের সার্বিক কর্মকান্ডের দায়িত্ব তার উপর ন্যস্ত, বিধায় লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী আখ রোপণ কার্যক্রম সম্পন্ন না হবার দায়ভার তার উপর বর্তায় বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে। চলতি মৌসুমে আখ-রোপণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হলে এই কর্মকর্তারা বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ব্যাপারে মোবারকগঞ্জ সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন, সব সময় তো চিঠিপত্র পাচ্ছি। বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক চিঠি একের পর এক মিলে আসছে। আখ রোপণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, চলতি বছর অধিক বৃষ্টির কারনে আখ রোপণে সমস্যা হয়েছে। অনেক রোপিত আখ নষ্ট হয়েছে। যার কারনে আখ রোপণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। তবে আমরা চেষ্টা করছি যাতে আগামি বছর আখ রোপন বেশি হয়।

শেয়ার