যশোর শহর থেকে ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়

muktipon
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর শহর থেকে অপহরণের শিকার ব্যবসায়ী শহিদুজ্জামান বাবলু ৫ লাখ মুক্তিপণ দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন। তাকে টানা তিনদিন সাতক্ষীরার একটি বাড়িতে আটকে রাখে পরিবারের কাছে মুক্তিপণের টাকা চেয়ে আসছিল অপহরণকারীরা। পরে বাবলুর স্ত্রী টাকা দিয়ে স্বামীকে ছাড়িয়ে আনে। সোমবার রাতে এঘটনায় ভুক্তভোগি ব্যবসায়ী বাদি হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় ৬জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।
মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ঝিকরগাছা উপজেলার মাটি কুমড়া গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে শহিদুজ্জামান বাবলু ব্যবসায়ীক করার কারনে যশোর শহরের বকচর হুশতলা এলাকার লোকমান হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বেশ কিছু দিন ধরে আসামিরা বাবলুকে খুন, গুম ও অপহরণের হুমকি দিয়ে আসছিল। গত ২০ জানুয়ারি রাত ৯টার দিকে বকচরের বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে শহিদুজ্জামান বাবলু ইজিবইকে ওঠার জন্য চৌরাস্তা বস্তাপট্টি বাটার শো-রুমের সামনে পৌঁছালে অপরিচিত একটি মাইক্রোবাস এসে তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে আসামি রেজাউলের বাড়িতে আটকে রেখে বাবলুর পরিবারের কাছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। তিনদিন আটক রাখার পর বাবলুর স্ত্রী লুৎফুন্নেছা অপহরণকারীদের দাবিকৃত মুক্তিপণের টাকা পরিশোধের পর তিন’শ টাকার অলিখিত স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে বাবলুকে ছেড়ে দেয়। মামলায় সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলার চেড়াঘাট গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে নাজমুল ইসলাম, মৃত রইছ উদ্দিনের ছেলে রেজাউল ইসলাম, তার ছেলে নুর হোসেন, জালালাবাদ গ্রামের হবিবার রহমানের ছেলে সাইদুল ইসলাম, একই গ্রামের ইকবাল হোসেন এবং শ্রীপতিপুর গ্রামের আমির আলীর ছেলে আব্দুল জব্বারসহ আরও কয়েকজন অজ্ঞাতনামাকে আসামি করা হয়েছে। তবে এঘটনার মামলায় কেউ আটক হয়নি।

শেয়ার