যবিপ্রবি’র ‘বিশ্ববিদ্যালয় দিবস’ উদযাপিত॥ বর্তমান সরকার শিক্ষার প্রসারের জন্য খুবই আন্তরিক : ড. গওহর রিজভী॥ প্রধানমন্ত্রীকে ‘ডক্টর অব সায়েন্স’ ডিগ্রি প্রদানের ঘোষণা উপাচার্যের

rizvi
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ‘বিশ্ববিদ্যালয় দিবস’ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘ডক্টর অব সায়েন্স’ অনারারি ডিগ্রি প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তার। সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ ঘোষণা দেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। তিনি বলেন, মেধাবীদের ভাল ও মানসম্মত শিক্ষার ব্যবস্থা করা সমাজ ও সরকারের দায়িত্ব। বর্তমান সরকার শিক্ষার প্রসারের জন্য খুবই আন্তরিক। এ কারণে সরকার অনেকগুলো সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তুলেছে এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমতি প্রদান করা হয়েছে।
তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সুযোগ সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে ‘লাইফ লং লার্নার’ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। তাদেরকে নিজস্ব পরিচয় সৃষ্টি করতে হবে। মেধার চর্চা করে দেশ, জাতি ও সমাজের কল্যাণে কাজ করতে হবে।
প্রধান অতিথি আরও বলেন, খুবই কম সময়ে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস গড়ে তোলো হয়েছে। এ জন্য এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে তিনি ধন্যবাদ জানান। পাশাপাশি তিনি উপাচার্যের তিনটি প্রত্যাশা ‘প্রধানমন্ত্রীকে অনারারি ডিগ্রি প্রদানের জন্য বিশেষ সমাবর্তন, যশোরকে অর্থনৈতিক জোন ঘোষণা এবং সার্কুলার রেলরোড স্থাপনের’ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করারও প্রতিশ্রুতি দেন।
এর আগে যবিপ্রবি’র বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। র‌্যালির নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। র‌্যালি শেষে প্রধান অতিথি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াইফাই উদ্বোধন করেন এবং পিঠা উৎসবের স্টল ঘুরে দেখেন। এরপর তিনি আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, যশোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, ডিন প্রফেসর ড. আনিসুর রহমান, ট্রেজারার শেখ আবুল হোসেন ও শিক্ষার্থী আফসানা তাজমীন তমা।
অনুষ্ঠানে যবিপ্রবি উপাচার্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যবিপ্রবি ক্যাম্পাস উদ্বোধন করে উৎসাহ যুগিয়েছেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর তিনটি প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে। সর্বশেষ তিনি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ২৮২ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন করেছেন। যশোর বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী সবসময়ই আন্তরিক। এ কারণে প্রধানমন্ত্রীকে অনারারি ডিগ্রি ডক্টর অব সায়েন্স প্রদানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ড ও একাডেমিক কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
উপাচার্য আরও বলেন, বর্তমান সরকার দেশে প্রাথমিকভাবে দশটি অর্থনৈতিক জোন করতে যাচ্ছে। যশোরকে এর মধ্যে রাখার জন্য তিনি অনুরোধ জানান। সেটি সম্ভব না হলে ১১তম অর্থনৈতিক জোন যেন যশোর হয় সে দাবি জানান। একইসাথে তিনি যশোর বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, আইসিটি পার্ক ঘিরে একটি সার্কুলার রেল রোড স্থাপনের দাবি জানান। বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে যবিপ্রবি ক্যাম্পাসে গতকাল ছিল উৎসব আমেজ। শিক্ষার্থীরা বর্ণাঢ্য সাজে র‌্যালি ও পিঠা উৎসব এবং বিকেলে কনসার্টের মাধ্যমে দিবসটি উদযাপন করেন।

শেয়ার