দাবি আদায়ে সারা দেশের মতো যশোরে লাগাতার আন্দোলনে ২৬ ক্যাডাররা

jessore hospital
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ দাবি আদায়ে লাগাতার আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছেন ২৬ ক্যাডার ও বিভিন্ন ফাংশনাল সার্ভিসের কর্মকর্তারা। বিসিএস (প্রকৃপি) সমন্বয় কমিটির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে যশোরেও হচ্ছে এই আন্দোলন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন দুই ঘন্টা কর্মবিরতির আন্দোলন চলবে বলে আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন। এদিকে, কর্মবিরতি চলাকালে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের বহিঃবিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের পড়তে হয় ভোগান্তিতে। এ সময় কথা হয় পপি আক্তার (১৮) নামে এক রোগীর সাথে। তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, পেটে ব্যাথা জনিত কারণে চিকিৎসা নিতে ১২টার দিকে হাসপাতালে আসেন। কিন্তু কর্মবিরতির কারণে টিকিট কাউন্টার বন্ধ রয়েছে। নিরুপায় হয়ে বহিঃবিভাগের পরিবর্তে জরুরি বিভাগ থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে হয়েছে। তিনি যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের মেয়ে।
অপরদিকে, হাসপাতালে অন্তঃবিভাগে রোগীদের দুর্ভোগ থেকে রক্ষা করতে সেবিকারা দিয়েছেন ব্যবস্থাপত্র। তবে মারাত্মক অসুস্থ রোগীর বিষয়টি ছিলো আলাদা। এ ধরনের রোগী এলেই সংশ্লিষ্ট বিভাগের চিকিৎসকরা সেবা দিতে ছুটে আসেন। তার প্রমাণও মিলেছে বৃহস্পতিবার ঘোপ নওয়াপাড়া রোড়ে গুলিবিদ্ধ সাব্বির হাসপাতালে ভর্তি হন দুপুর ১২টায়। এ সময় চিকিৎসকদের কর্মবিরতি চললেও মানবিকতার কারণে রোগীকে বাঁচাতে কর্মবিরতি বাদদিয়ে ছুটে আসেন চিকিৎসক। এছাড়া কর্মবিরতির মধ্যে যাতে মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার সমস্যা না হয় সেজন্য শিক্ষার্থীদের রুটিন ক্লাস সকালে ও ব্যবহারিক ক্লাস বিকালে নিচ্ছেন চিকিৎসকরা। এমন তথ্য জানিয়েছেন ২য় বর্ষের ছাত্র লাবিব হাসান তালুকদার।
এ ব্যাপারে কথা হয় জেলা বিএমএ’র সভাপতি ও যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. একেএম কামরুল ইসলাম বেনু’র সাথে। তিনি জানান, বেতন স্কেল, সিলেকশন গ্রেড, এবং টাইম স্কেল পুণর্বহাল, চাকুরির বৈষম্য দূরীকরণের দাবি আদায় না হওয়া পযর্ন্ত এই আন্দোলন চলবে। তবে আন্দোলনের মাঝেও রোগীদের দুর্ভোগ নিরসনে কাজ করছেন চিকিৎসকরা।
এ ব্যাপারে সমন্বয় কমিটির যশোর জেলা শাখার আহবায়ক ও জেলা সির্ভিল সার্জন ডা. শাহাদাৎ হোসেন বলেন রোগীদের কষ্ঠ দিয়ে চিকিৎসকরা কর্মবিরতি পালন করে না। তবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের এই দু’ঘন্টা একটু সমস্যা হয়েছে। তিনি রোগীদের ১২টার আগে হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নেওয়ার আহবান জানান।

শেয়ার