দিল্লির রাজপথ এখন যোগপথ!

1

ModiYoga
সমাজের কথা ডেস্ক॥

ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির রাজপথ এখন যোগপথে পরিণত হয়েছে। রোববার সকাল থেকে যোগব্যায়ামে বসেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ তার হাজার হাজার অনুসারী।

নারীপুরুষসহ সবাই যোগব্যায়াম কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন।

২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগব্যায়াম দিবস। মোদির দাবিতেই জাতিসংঘ ২০১৪ সালে এই দিনকে আন্তর্জাতিক যোগব্যায়াম দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

এরপর মোদি দিনটির সঙ্গে ভারতের নাম যুক্ত করার উদ্যোগ নেন। গিনেস ওয়ার্ল্ড বুকে ভারতের নাম যুক্ত করতে ২১ জুন তার সঙ্গে ভারতবাসীকে যোগব্যায়ামে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানান মোদি।

তারই অংশ হিসেবে নরেন্দ্র মোদি রোববার সকাল থেকেই দিল্লিগেটে যোগব্যায়ামের বিভিন্ন আসন করছেন। এই যোগব্যায়াম কর্মসূচি থেকে বাদ যাননি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালও।

কেজরিওয়াল সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, যোগব্যায়াম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। এ ছাড়া প্রত্যেকেরই যোগব্যায়াম করা উচিত। মানসিক চাপ কমিয়ে আনতে খুবই কার্যকরী যোগব্যায়াম।

এদিকে, ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, দিল্লিগেটের রাজপথে ৩৭ হাজারেরও বেশি মানুষ যোগব্যায়ামে অংশ নিচ্ছেন।

এর আগে ২০০৫ সালের ১৯ নভেম্বর বিবেকানন্দ কেন্দ্রের আহ্বানে ২৯,৯৭৩ নারীপুরুষ ভারতের গোয়ালিওরে যোগব্যায়ামে অংশ নিয়ে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম লেখান।

নরেন্দ্র মোদি আন্তর্জাতিক যোগব্যায়াম দিবস উপলক্ষে দিল্লিতে যোগব্যায়ামের ওপর আয়োজিত আন্তর্জাতিক এক সম্মেলনে বলেন, আজ (রোববার) আমরা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক যোগব্যায়াম কর্মসূচি উদযাপন করছি।

তিনি বলেন, দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন দেশে যোগব্যায়াম কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে লাখ লাখ নারীপুরুষ অংশ নিচ্ছেন।

তিনি বলেন, রোববার ভারতের লাখ লাখ নারীপুরুষ যোগব্যায়ামে অংশ নিচ্ছেন। এর মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের নারীপুরুষ আমাদের অন্তরের কাছাকাছি এসেছেন। শুধু তাই-ই নয়, এই যোগব্যায়াম জাত-ধর্ম-বর্ণ সবকিছুকে বিলীন করে দিয়েছে আজ।

মোদি বলেন, যোগব্যায়াম দীর্ঘজীবন লাভের একটি ওষুধ। এটি একটি প্রতিষ্ঠানই শুধু নয়, এটি বিশ্বাসেরও একটি বিষয়। যোগব্যায়াম একজন মানুষের সঙ্গে তার শরীর, পারিপার্শ্বিকতাসহ প্রকৃতির মেলবন্ধন তৈরি করে।

যোগব্যায়ামের উপকারিতা প্রসঙ্গে মোদি বলেন, নিয়মিত যোগব্যায়াম অভ্যাসের ফলে ব্যক্তিমানুষের মধ্যে স্থিরতা তৈরি হয়। এ ছাড়া যোগব্যায়াম ধ্বংসাত্মক মনোভাব দূর করতে সাহায্য করে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী যে ভীতির সঞ্চার হয়েছে, যোগব্যায়াম তার বিপরীতে আত্মবিশ্বাস ও শক্তি সৃষ্টি করতে পারে। সুস্বাস্থ্য এবং শৃঙ্খলাবদ্ধ মন ভয়কে জয় করার ভিত্তি হচ্ছে যোগব্যায়াম। যোগব্যায়াম বিক্রিযোগ্য কোনো পণ্য নয়। এটি মানবতার জন্য। বিশ্ব শান্তির জন্য।

ভারতের আয়ূশ মন্ত্রণালয় (আয়ূর্বেদ, যোগ ও নিউরোপ্যাথি, ইউনানি, সিদ্ধ ও হোমিওপ্যাথি) এই যোগব্যায়াম কর্মসূচির আয়োজন করে।