থানায় ঢুকে পুলিশের মোবাইল চুরি

curi
সমাজের কথা ডেস্ক॥ সাধারণত: খোয়া যাওয়া জিনিস ফেরত পেতে আমরা পুলিশের শরণাপন্ন হই। কিন্তু পুলিশ নিজেই যখন চোরের হাতে নিজের মোবাইল আর হেলমেট খুইয়ে বসেন তখন আমারা আর কাকে ভরসা করব, বলুন! চুরি বলে চুরি, স্বয়ং থানায় ঢুকে পুলিশের নাকের ডগায় বসে ওইসব জিনিস চুরি করেছে ফ্রান্সের এক আজব চোর। অবশ্য চুরি করা জিনিসগুলো বেশিক্ষণ সামলাতে পারেননি তিনি। অল্প কিছুক্ষণ পরেই ধরা পরেছেন। এ ঘটনায় তারে ৩ মাসের জেল হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ধর্ষণের মামলা করতে প্যারিসের এক থানায় গেছেন ২৪ বছরের এক ফরাসি তরুণ। কিন্তু রিপোর্ট লেখার সময় তিনি অদ্ভূত আচরণ এবং অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনি থানার এক নারী কন্সটেবলের কাছে খাওয়ার পানি চান। পানি টানি খেয়ে তিনি থানা থেকে বেরিয়ে আসেন।

তিনি চলে যাওয়ার পর ওই নারী পুলিশ দেখেন তার মোবাইল ফোন গায়েব। সঙ্গে সঙ্গে তিনি প্রহরীকে ঢেকে ওই তরুণকে আটকাতে বলেন। অল্প সময়ে খুব বেশি দূর যাওয়া সম্ভব হয়নি চোরের। পুলিশ তাকে দ্রুত ধরে ফেলে। পরে তার ব্যাগ হাতড়ে পুলিশের একটি জ্যাকেট এবং হেলমেট উদ্ধার করা হয়। অবশ্য এগুলো প্যারিস পুলিশের ছিল না। কানাডার সুদূর কুইবেক প্রদেশের কোনো এক থানা থেকে নাকি এ দুটো চুরি করা হয়েছিল। আর খোয়া যাওয়া মোবাইলটি পাওয়া যায় থানার টয়লেটে।

ঘটনা হচ্ছে, পুলিশ তার জন্য পানি আনতে গেলেই তিনি চট করে মোবাইটি সরিয়ে ফেলেন এবং টয়লেটে রেখে দিয়ে আসেন। এর আগেও তিনি বিভিন্ন থানায় চুরি করেছিলেন বলে জানা গেছে। তবে তিনি পুলিশের জিনিসপত্র কেন চুরি করতেন তা স্পষ্ট নয়।

মিথ্যা পরিচয় দেয়া এবং চুরির চেষ্টা চালানোয় তার ৩ মাসের জেল হয়েছে। তবে দোষী সাব্যস্থ হলে সাজার মেয়াদ আরো বাড়বে।

শেয়ার