এবার ফাইনালে উঠার রোমাঞ্চের অপেক্ষা

newzeland1
সমাজের কথা ডেস্ক॥
নকআউট পর্বের রোমাঞ্চ বলতে যা বোঝায় কোয়ার্টার ফাইনালে তার ছিটেফোটাও লক্ষ্য করা যায়নি। চারটি কোয়ার্টার ফাইনালেই একপেশে ম্যাচ উপভোপ করেছে দর্শকরা। তবে ফেভারিট দলগুলোই কোয়ার্টারে জয় পেয়েছে সেটি নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। সেমির লড়াইও কি একপেশে হবে নাকি রোমাঞ্চকর লড়াই উপহার দিবে দলগুলো? সেটিই এখন দেখার বিষয়।
আগামী ২৪ মার্চ প্রথম সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ড। অপর সেমিতে ২৬ মার্চ ভারতের প্রতিপক্ষ চারবারের সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। কোয়ার্টার ফাইনাল জমজমাট লড়াই থেকে ক্রিকেটপ্রেমীদের বঞ্চিত করলেও সেমিতে রোমাঞ্চকর ম্যাচের জন্যই অপেক্ষা করছেন সবাই।
সেমিফাইনালের চারটি দলই কোয়ার্টারে দাপটের সঙ্গে জিতে সেমিতে পা রেখেছে। শ্রীলংকাকে ৫ উইকেটে পরাজিত করে দক্ষিণ আফ্রিকা আর পাকিস্তানের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার জয়টি আসে ৬ উইকেটের ব্যবধানে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ‘বিতর্কিত’ ম্যাচে ভারত জয় পায় ১০৯ রানে আর মার্টিন গাপটিলে ডাবল সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৪৩ রানে হারিয়ে সেমির টিকেট কাটে নিউজিল্যান্ড।
এবার সেমির দুটি লড়াই প্রতিশোধের মিশন। গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হওয়া দলগুলো এবার সেমিতে একে অপরের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে। ২০১১ বিশ্বকাপের কোয়ার্টারে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনালে উত্তীর্ন হয়। এবার প্রোটিয়া ও অসিদের সামনে সেই হারের বদলা নেয়ার সুযোগ এসেছে।
অস্ট্রেলিয়া-ভারত ম্যাচে পরিসংখ্যান কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে কথা বলে। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে এর আগে ৬ বার খেললে কখনও পরাজয়ের মুখ দেখেনি চারবারের সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। অপরদিকে এর আগে পাঁচবার সেমিতে পা রাখা ভারত ৩ জয়ের বিপরীতে হেরেছে দুটিতে।
নিউজিল্যান্ড-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচের পরিসংখ্যান সেক্ষেত্রে আলাদা বলা যায়। নিউজিল্যান্ড অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে রেকর্ড সাতবার সেমিফাইনালে উঠার গৌরব অর্জন করেছে। তবে আগের ছয় সেমিফাইনালের একটিতেও জিততে পারেনি নিউজিল্যান্ড। অপরদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা এই বিশ্বকাপের আগে কখনও নকআউট পর্বে জয়ের মুখ দেখেনি। এবার তারা কোয়ার্টারে শ্রীলংকাকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে তাদের ‘চোকার্স’ উপাধি কিছুটা হলে দূর করতে পেরেছে।
দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া কি পারবে গত বিশ্বকাপের হারের বদলা নিতে? নাকি আগের বিশ্বকাপের ফলাফলের পুনরাবৃত্তি ঘটবে তা জানার জন্য আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। তবে একটা বিষয় নিশ্চিত, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা দুই দলের যেকোনো একটি এবার নতুন ইতিহাস রচনা করতে প্রস্তুত। এই দুই দলের যেকোনো একটি প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠার সুযোগ পাচ্ছে।

শেয়ার