বিভাগীয় পর্যায়েও হবে বিআরডিবি অফিস

PM

সমাজের কথা ডেস্ক॥ বিভাগীয় পর্যায়ে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) কার্যালয় স্থাপনের বিধান রেখে একটি আইনের খসড়া অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড আইন, ২০১৫’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।
বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সাংবাদিকদের বলেন, সর্বোচ্চ আদালত ও মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সামরিক শাসনামলের একটি অধ্যাদেশ নতুন করে আইন আকারে পরিণত করতে এ উদ্যেগ।
“বোর্ড পরিচালনায় অধ্যাদেশটি আইনে পরিণত করতে খুব বেশি পরিবর্তন করা হয়নি। মূলত এটি বাংলায় করা হয়েছে।”
প্রশাসনিক কাঠামোর বিষয়ে সংযোজন করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বিআরডিবির কেন্দ্রীয় পর্যায়ে, জাতীয় পর্যায়ে, জেলা পর্যায়ে ও উপজেলা পর্যায়ে অফিস প্রতিষ্ঠার বিধান ছিল।
“নতুন আইনে বিভাগীয় পর্যায়ে অফিস স্থাপনের বিধান যুক্ত করা হয়েছে। কারণ এর কাজ অনেক বিস্তৃত হয়েছে, বিভাগীয় পর্যায়ে অফিস থাকা দরকার।”

সমবায় সমিতি নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি)। সমবায় সমিতিগুলোর নিবন্ধন দেয় সমবায় অধিদপ্তর। আর এদের অর্থ, প্রশিক্ষণ, ব্যবস্থাপনাগত সহায়তা দেয় বিআরডিবি।
“সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধন ছাড়াও বিআরডিবির অনুমোদন নিয়ে কিছু কিছু ইনফরমাল গ্রুপও (অনানুষ্ঠানিক দল) কিন্তু কাজ করছে। এদেরও নতুন আইনের কাঠামোর মধ্যে নিয়ে আসা হবে,” বলেন সচিব।
“মন্ত্রিসভা বলেছে, এদের ইনফরমাল গ্রুপ বা অন্য কোন নাম দেবে কিনা তা বিআরডিবি পরীক্ষা করে দেখবে।”

বর্তমানে পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী। নতুন আইনে চেয়ারম্যান হবেন মন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রী।
মন্ত্রী না থাকালে প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রীরা যাতে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন সে ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

বোর্ডও কিছুটা পুনর্গঠন করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “আগে বার্ড (বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি, কুমিল্লা) ও আরডিএ’র (পল্লী উন্নয়ন একাডেমি, বগুড়া) মহাপরিচালক বোর্ডের সদস্য ছিলেন। গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু দারিদ্র বিমোচন ও পল্লী উন্নয়ন একাডেমি স্থাপিত হয়েছে। নতুন আইনে এ প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালকও বোর্ডের সদস্য হবেন।”
নির্বাচিত নমিনেটেড সদস্যদের মেয়াদ ছিল এক বছর তা তিন বছর করা হচ্ছে নতুন আইনে।

শেয়ার