আফগানিস্তানকে উড়িয়ে সান্ত¦নার জয় ইংল্যান্ডের

????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????????

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ঘরে ফেরার আগে সান্ত্বনার জয় পেল ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানকে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৯ উইকেটে হারায় ওয়েন মর্গ্যানের দল।
সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শুক্রবার বৃষ্টি-বিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতি অনুযায়ী ২৫ ওভারে জয়ের জন্য ১০১ রানের লক্ষ্য পায় ইংল্যান্ড। ৪১ বল হাতে রেখেই জয় পায় তারা।
ছয় ম্যাচে চার হার ও দুই জয়ে পাওয়া চার পয়েন্ট নিয়ে পুল ‘এ’র তালিকায় পঞ্চম স্থানে থেকে অস্ট্রেলিয়া-নিউ জিল্যান্ড বিশ্বকাপ শেষ হল ইংল্যান্ডের। মর্গ্যানের দলের আগের জয়টি স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে পাওয়া।

আর ছয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে পাওয়া জয়টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম আসরের সেরা সাফল্য হয়ে থাকল আফগানিস্তানের।
অ্যালেক্স হেলস ও ইয়ান বেল উদ্বোধনী জুটিতে ৮৩ রান তুলে ইংল্যান্ডকে জয়ের পথে অনেকটাই এগিয়ে দেন। হামিদ হাসানের বলে আফসার জাজাইকে ক্যাচ দিয়ে হেলস (৩৭) ফিরলে ভাঙে ইংল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি।
হেলসের বিদায়ের পর আর কোনো উইকেট হারায়নি ইংল্যান্ড। জেমস টেইলরকে সঙ্গে নিয়ে অপরাজিত থেকে দলকে সান্ত্বনার জয় এনে দেন বেল। টেইলর ৮ ও বেল ৫২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন।
আফগানিস্তানের ইনিংসের ৩৭তম ওভারের সময় প্রবল বৃষ্টি নামে। সে সময় সাত উইকেট হারিয়ে ১১১ রান তুলেছিল মোহাম্মদ নবির দল।
প্রায় আড়াই ঘণ্টা অপেক্ষার পর ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতি অনুযায়ী জয়ের জন্য ২৫ ওভারে ১০১ রানের লক্ষ্য পায় ইংল্যান্ড।
এসসিজিতে আফগানিস্তান আগে ব্যাটিংয়ের সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়। প্রথম সারির ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৬৫ রান তুলতেই পাঁচ উইকেট হারায় বিশ্বকাপের নবাগত দলটি।
মিডল অর্ডারে শফিকুল্লাহ ৩০, মোহাম্মদ নবি ১৬ ও নজিবুল্লাহ জাদরান অপরাজিত ১২ রান করলে আফগানিস্তানের দলীয় একশ’ পেরুয়।
ইংল্যান্ডের ক্রিস জর্ডান ১৩ রানে দুই উইকেট নিয়ে এসসিজির ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আফগানিস্তান: ৩৬.২ ওভারে ১১১/৭ (আহমাদি ৭, নওরোজ ৪, আফসার ৬, নাসির ১৭, সেনওয়ারি ৭, শফিকুল্লাহ ২০, নবি ১৬, নজিবুল্লাহ ১২*, হামিদ ০*; অ্যান্ডারসন ১/১৮, ব্রড ১/১৮, জর্ডান ২/১৩, বোপারা ২/৩১, ট্রেডওয়েল ১/২৫)।

ইংল্যান্ড: ১৮.১ ওভরে ১০১/১ (হেলস ৩৭, বেল ৫২*, টেইলর ৮*; হামিদ ১/১৭)।

ম্যাচ সেরা: ক্রিস জর্ডান

শেয়ার