প্রোটিয়াদের কাছে ১৪৬ রানে হার আমিরাতের

UAE
সমাজের কথা ডেস্ক॥
দ্রুত গতির ডেল স্টেইন, মরনে মরকেল ও ভারনন ফিল্যান্ডারদের সামল দিয়ে পাক্কা ৪৭ ওভার ৩ বল মোকাবেলা করে শেষ পর্যন্ত হার মানলো সংযুক্ত আবর আমিরাত। ফলাফল ১৪৬ রানের বড় ব্যবধানে তাদের হার। আর এ জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ছয় ম্যাচের চারটিতে জিতে ৮ পয়েন্টে পুল-বি’র দ্বিতীয় স্থান দখল করে নিলো।

বোলিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার ডি ভিলিয়ার্স ৩ ওভারে ১৫ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া ২টি করে উইকেট আরও নিয়েছেন মরনে মরকেল ও ভারনন ফিল্যান্ডার। একটি করে উইকেট পান জেপি ডুমিনি, ইমরান তাহির ও ডেল স্টেইন।

দলের হয়ে এ ম্যাচে একাই সর্বোচ্চ উইকেট (২টি) ও সর্বোচ্চ রান (৯৯) করায় ম্যাচ সেরা প্রোটিয়া অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স।

খেলায় আমিরাতের টপ অর্ডার, মিডিল অর্ডার ও লোয়ার মিডিল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের সাজঘরে আসা-যাওয়ার ধারা ছিল অব্যাহত। তবে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান স্বপ্নিল পাতিল ও শায়মান আনোয়ারের মধ্যকার ৬৩ রানের জুটি আমিরাতকে খানিক হলেও ম্যাচে লড়াকু মনোভাবে রাখে।

আমিরাতের ৬৩ রানের জুটি ভাঙেন প্রোটিয়া লেগ ব্রেক বোলার ইমরান তাহির। এরপর বল হাতে নিজের প্রথম শিকার করলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। আর এতেই ৩৪২ রানের বড় টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে ম্যাচ থেকে অনেক দূরে সরে যায় সংযুক্ত আরব আমিরাত।

৩২.৪ ওভারে সাকলাইন হায়দারকে ক্যাচ আউট করেন ডি ভিলিয়ার্স। ক্যাচটি ধরেন রিলে রুশো। এর খানিক আগে ২৯.৬ ওভারে দলীয় ১০৮ রানে ইমরান তাহিরের বলে ক্যাচ আউট হন শায়মান আনোয়ার। এ ক্যাচটিও ধরেন রিলে রুশো। শায়মান আনোয়ার সাজঘরে ফেরার আগে করেন ৬৪ বলে ৩৯ রান।

৩৯.২ বলে ভারনন ফিল্যান্ডারের বলে ডি ভিলিয়ার্সের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন মোহাম্মদ নাভিদ। তার সংগ্রহ ১৫ বলে ১৭। তার আগে, আউট হন আমজাদ জাভেদ। এবি ডি ভিলিয়ার্সের দ্বিতীয় শিকার তিনি। দলীয় ৩৪.২ ওভারে আউট হওয়ার আগে তার সংগ্রহ ছিল ৫ রান।

এদিকে ম্যাচের প্রথম দিকে পরপর দুই উইকেটের পতন ঘটে চাপে পড়ে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ১২.২ ওভারে মরকেলের দ্বিতীয় শিকার হয়ে বিদায় নিলেন খুররম খান। ১৭ বলে ১২ রান করেন তিনি। ১১.৪ ওভারে দলীয় ৪৫ রানের মাথায় জেপি ডুমিনি ফেরান আমজাদ আলীকে। আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ৩৬ বলে ২১ রান। তার আগে ৬.৪ ওভারে পেসার মরনে মরকেলের বাউন্সি বলে অসাধারণ একটি ক্যাচে আউট হন আন্দ্রি বেরেনগার। ক্যাচটি ধরেন রিলে রুশো।

এদিকে, ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করা দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়াসের ৯৯ ও শেষ দিকে ফারহান বেহেদ্রিনের ৩১ বলে ৬৩ রানের ঝড়ো ইনিংসে ছয় উইকেট হারিয়ে ৩৪১ রান সংগ্রহ করে।

ম্যাচে সর্বোচ্চ ৯৯ রান আসে এবি ডি ভিলিয়ার্সের ব্যাট থেকে। ৮২ বলে ৯৯ রান করে দলীয় ৪২.২ ওভারে কামরান শাহজাদের শিকার হন ডি ভিলিয়ার্স। ক্যাচ আউট হয়ে ফিরে যেতে হয় তাকে। এতে মাত্র ১ রানের জন্য ক্যারিয়ারের ২১তম শতক হাত ছাড়া হলো প্রোটিয়া অধিনায়কের।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) সকাল ৭টায় বিশ্বকাপের ৩৬তম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনের ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামে মাঠে নামে পুল বি’র এ দুই দল। টস জিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় আমিরাত।

এ জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ছয় ম্যাচের চারটিতে জিতে ৮ পয়েন্টে পুল-বি’র দ্বিতীয় স্থান দখল করে নিলো। অন্যদিকে নিজেদের প্রথম পাঁচটি ম্যাচেই হেরে পুল-বি’র পয়েন্ট টেবিলের একদম তলায় এখন মুরুর দেশ আমিরাত।

শেয়ার