রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা চালাবেন না হ্যাপি

rubel ha
সমাজের কথা ডেস্ক॥

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেছে টাইগাররা। দেশবাসীকে আনন্দের জোয়ারে ভাসানো ওই জয়ের অন্যতম নায়ক পেসার রুবেল হোসেন। ধর্ষণের অভিযোগে বিশ্বকাপে খেলাটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল তার। জেলেও যেতে হয়েছিল তাকে। অবশেষে জামিনে মুক্তি পেয়ে বিশ্বকাপে খেলতে যান রুবেল।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুরন্ত জয়ের পর বদলে গেলো সবকিছু। ৪ উইকেট নেওয়া জয়ের অন্যতম নায়ক রুবেলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছিলেন অভিনেত্রী নাজনীন আকতার হ্যাপি। বিশ্বকাপের শেষ আটে দেশকে পৌঁছে দেওয়ার আনন্দে রুবেলের বিরুদ্ধে আর মামলা চালাবেন না বলে জানিয়েছেন ওই অভিনেত্রী।

পেসার রুবেল হোসেনের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অন্তরঙ্গকার অভিযোগ এনেছিলেন হ্যাপি। বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রুবেলের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছিলেন ঢাকার একটি আদালত।

গতকাল সোমবার (০৯ মার্চ) বাংলাদেশের জয়ের পরই রুবেলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন হ্যাপি। এরপর মঙ্গলবার (১০ মার্চ) তিনি রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেওয়ার ঘোষণাও দিলেন।

হ্যাপি বলেন, প্রাক্তন বন্ধুকে তিনি ক্ষমা করে দিচ্ছেন। ওর বিরুদ্ধে মামলা আর না চালানোরই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেলে তিনি বলেন, আমি ওর বিরুদ্ধে আর কোনও সাক্ষ্য বা তথ্যপ্রমাণ দেব না। আমি যদি না চালাই তাহলে তো আর কোনও মামলা থাকবে না।

এছাড়াও বেশ কয়েকটি টিভি চ্যানেলেও মামলা তুলে নেওয়া সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশিত হয়।

উল্লেখ্য, এর আগে নাজনীনের আইনজীবী দেবুল দে-ও আদালতে রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা লড়তে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, বিশ্বকাপে রুবেল দেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন। এই অবস্থায় আমি তার ওপর কোনও চাপ সৃষ্টি করতে চাই না।

উল্লেখ্য, রুবেল বরাবরই তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন। ২০১৩-র কিছু আশা কিছু ভালোবাসা সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন নাজনীন আক্তার হ্যাপি।

শেয়ার