মস্তিষ্কের ইশারায় প্লেন ওড়ালেন পক্ষাঘাতগ্রস্ত নারী !

Darpa

সমাজের কথা ডেস্ক॥

মস্তিষ্কের ইশারায় প্লেন ওড়ালেন পক্ষাঘাতে পঙ্গু এক নারী! অথচ জটিল কোয়াড্রিপলজিক রোগের কারণে তিনি দুই পা এবং দুই বাহু নাড়াতে সম্পূর্ণভাবে অক্ষম। যুক্তরাষ্ট্রের ডিফেন্স অ্যাডভান্স রিসার্চ প্রজেক্টস এজেন্সির (ডারপায়) এক গবেষণা প্রকল্পে অংশ নিয়ে এমন অসাধ্য সাধন করেন ৫৫ বছর বয়সী জান সুয়েরমান। কম্পিউটার সিমুলেটরে এফ-৩৫ জঙ্গি বিমান এবং একটি সেনা বিমান ওড়ান তিনি।

মার্কিন প্রতিরক্ষা গবেষণায় অন্যতম পথিকৃত প্রতিষ্ঠান ডারপায় এমন অনেক গবেষণাই পরিচালিত হয় যার বাস্তবায়ন শুধু হলিউডের সায়েন্সফিকশন মুভিগুলোতেই সম্ভব।

এসব গবেষণার অধিকাংশই যদিও গোপন রাখে মার্কিন সরকার তবুও সম্প্রতি এক সেমিনারে সুয়েরমানের এই সাফল্যের কথা তুলে ধরেন ডারপা প্রধান আরতি প্রভাকর।

নিউ আমেরিকা ফাউন্ডেশন আয়োজিত ফিউচার অব ওয়ার ফোরামে আরতি প্রভাকর বলেন, তাদের এক গবেষণায় পক্ষাঘাতে আক্রান্ত সম্পূর্ণ পঙ্গু জান সুয়েরমান শুধু তার চিন্তাশক্তির ব্যবহার করে ফ্লাইট সিমুলেটরে(কম্পিউটার গেম যেখানে পাইলট কৃত্রিম দৃশ্যপটে প্লেন ওড়ানোর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন) একটি অত্যাধুনিক এফ-৩৫ জঙ্গি বিমান এবং একটি সেসনা প্লে¬ন চালিয়েছেন।

গত দুই বছর ধরেই ডারপায় বিশেষ এক নিউরো সিগনালিং গবেষণা প্রকল্পের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন সুয়েরম্যান।

গবেষণার প্রথম ধাপে চিন্তাশক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে সুয়েরম্যান একটি রোবোটিক বাহু নড়াচাড়ায় সমর্থ হন। মস্তিষ্কের সিগনাল কৃত্রিম বাহুতে সঞ্চালিত করে চকলেট খেতে এমনকি হাই ফাইভ এবং থাম্বস আপ দেখাতেও সফল হন তিনি।

এ সময় গবেষকরা বিস্ময়ের সঙ্গে লক্ষ্য করেন যে সুয়েরম্যান তার মস্তিষ্কের বাম পাশের মোটর কর্টেক্স(মস্তিষ্কের যে অংশ শরীরে বিভিন্ন পেশীকে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে) দিয়ে একই সঙ্গে ডান এবং বাম পাশের কৃত্রিম বাহুকে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম।

মূলত বাম দিকের মোটর কর্টেক্সের সাহায্যে শরীরে ডান অংশের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে থাকে মানুষ।

এই সাফল্যে উৎসাহিত হয়ে সুয়েরমান ফ্লাইং সিমুলেটরে একটি এফ-৩৫ ফাইটার প্লে¬ন ওড়ানোর ইচ্ছা পোষণ করেন।

শেয়ার