বিএনপিকে সুযোগ দিতেই খালেদা গ্রেফতারে ধীর গতি

Khaleda zia
সমাজের কথা ডেস্ক॥

গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পরও খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার না করে চলমান অবস্থা থেকে বিএনপিকে বের হয়ে আসার সুযোগ দিতে চায় সরকার।এ জন্য কিছুদিন সময়ও দেওয়া হতে পারে।

তবে এরপরও বিএনপি অবরোধ-হরতালের অবস্থান থেকে সরে না এলে দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হবে।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও সরকারের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কঠোর অবস্থানের পাশাপাশি নানা কৌশল অবলম্বন করেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে সরকার। খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করার মতো অ্যাকশনে সরকার আগেই যেতে চায় না।

পরোয়ানা জারি করে গ্রেফতার না করে এক ধরনের চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে। যাতে বিএনপি বর্তমান অবস্থান থেকে পিছু হটে।

সরকারের সূত্রগুলো বলছে, আকস্মিক বা তাড়াহুড়ো করে কিছু করতে চাইলে অনেক আগেই খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করা হতো। বিশেষ করে জানুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমায় কর্মসূচির সময়ই। এরপর ফেব্রুয়ারির প্রথম থেকে শুরু হয়েছে এসএসসি পরীক্ষা। অবরোধ-হরতালের কারণে বন্ধের দিন শুক্র ও শনিবার পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া গত দুই মাসের টানা অবরোধ-হরতালের নাশকতায় প্রায় একশ’র মতো মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

ওই সময় সংসদের ভেতরে-বাইরে বিভিন্নভাবে খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের দাবি উঠেছিল। একই দাবিতে তৎপর ছিল বিরোধীদলের নেতারাও।

কিন্তু বিএনপি নেত্রীকে গ্রেফতার না করে বিভিন্নভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বাংলানিউজকে বলেন, আন্দোলনের নামে সহিংসতা চালিয়ে মানুষ হত্যা করে বিএনপি রাজনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ বিষয়টি উপলব্ধি করে বিএনপি হয়তো তাদের এই অবস্থান থেকে সরে আসবে।

‘আর এ বিষয়টি বিবেচনা করেই খালেদা জিয়াকে গ্রেফতারের মতো চূড়ান্ত অ্যাকশনে যায়নি সরকার। কিন্তু এখন কোনো উপায় নেই। সহিংস অবস্থান থেকে সরে না এলে এক পর্যায়ে গ্রেফতারই হবে চূড়ান্ত পদক্ষেপ,’—বলেন তিনি।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিএনপি সভা-সমাবেশের কর্মসূচি দিয়ে অবরোধ-হরতাল থেকে বের হয়ে আসতে চাইলে সে ব্যাপারেও সরকার ছাড় দেবে।

এরই অংশ হিসেবে গত বুধবার খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করার পর এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করা হয়নি।

টানা দুইমাস ধরে সহিংস কর্মসূচি দিয়ে পেট্রোল বোমায় মানুষ পুড়িয়ে মারায় এই অবরোধ-হরতালের বিরুদ্ধে মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। মাঠ পর্যায়ে হরতালের কোনো প্রভাব নেই। এরপরও টানা কর্মসূচি দিয়ে চোরাগোপ্তা হামলা, পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা, জ্বালাও-পোড়াও করা হচ্ছে।

এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য গ্রেফতার করে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়া না হলে ফল আরো খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা আওয়ামী লীগ নেতাদের।

শেয়ার