বোমা বানাতে গিয়ে কব্জি হারাল শিবিরকর্মী

gazipur alim
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বিএনপি-জামায়াত জোটের অবরোধের মধ্যে গাজীপুরের চান্দনার একটি বাড়িতে বোমা বানানোর সময় বিস্ফোরণে ইসলামী ছাত্র শিবিরের এক কর্মীর হাতের কব্জি উড়ে গেছে।
আহত আব্দুল আলীম (৩২) চান্দনা এলাকার মো. জমির উদ্দিন মুন্সীর ছেলে। তিনি ছাত্রশিবিরের সাথী। আটকের পর তাকে হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

জয়দেবপুর থানার ওসি খন্দকার রেজাউল হাসান রেজা জানান, শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে নিজেদের বাড়িতে বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে আলীম আহত হন।

“এতে তার বাঁ হাতের কব্জি ও ডান হাতের বুড়ো আঙ্গুল উড়ে গেছে।”

বিস্ফোরণের পর পালানোর সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় তাকে আটক করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। পরে সেখান থেকে চিকিৎসকরা তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠিয়েছেন।

বিস্ফোরণে আহত হওয়ার পর আলীমের এক সঙ্গী পালিয়ে গেছে জানিয়ে ওসি রেজাউল বলেন, তাকে ধরার চেষ্টা চলছে।

“পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ লিটার পেট্রোল, এক কেজি গান পাউডার, কিছু খালি বোতলসহ পেট্রোল বোমা ও হাতবোমা তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করছে।”

আলীমের বড় ভাই গাজীপুর জেলা জামায়াতের রুকন। তাৎক্ষণিকভাবে তার নাম জানাতে না পারলেও এ দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে নাশকতার ঘটনায় থানায় মামলা রয়েছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা রেজাউল।

তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক আব্দুস সালাম সরকার জানান, বোমায় আলীমের বাঁ হাতের কব্জি এবং ডান হাতের বুড়ো আঙ্গুল উড়ে গেছে। এছাড়া ডান হাতের আরও কয়েকটি আঙ্গুল প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে ঝুলে আছে।

“প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।”

শেয়ার