‘জঙ্গি’ আস্তানায় মিলল ৭৬ বোমা, দু’হাজার বোমার সরঞ্জাম, আটক ৪

সমাজের কথা ডেস্ক॥

নগরীর হালিশহরে গোল্ডেন কমপ্লেক্স আবাসিক এলাকায় একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ৭৬টি হ্যান্ডগ্রেনেড সদৃশ তাজা বোমা ও বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির সরঞ্জাম, গোলাবারুদসহ তিন ‘জঙ্গি’সহ চারজনকে আটক করেছে র‌্যাব। এদের মধ্যে এক নারীও আছেন।

শুক্রবার রাতভর গোল্ডেন কমপ্লেক্স আবাসিক এলাকার বি এ ম্যানশন (বাড়ি নম্বর-১/১৯) নামের একটি ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এসময় ওই ফ্ল্যাটে মজুদ রাখা বিস্ফোরকগুলো জব্দ করে র‌্যাব।

জনবসতিপূর্ণ আবাসিক এলাকার ভেতরে ‘জঙ্গি’ আস্তানার খবরে বিস্মিত হয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। র‌্যাব অভিযান চালানোর আগে কেউ ধারণাই করতে পারেননি বিষয়টি।

‘জঙ্গি’দের আটকের খবর পেয়ে হেলিকপ্টারযোগে শনিবার দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাস্থলে আসেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ।

প্রেস ব্রিফিংয়ে বেনজির বলেন, আমরা গত ১৯ ফেব্রুয়ারি হাটহাজারি থেকে ১২ জন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করি। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ২১ ফেব্রুয়ারি বাঁশখালী উপজেলার লটমণি পাহাড় থেকে বিপুল অস্ত্র ও জঙ্গি প্রশিক্ষণের সরঞ্জামসহ পাঁচ জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করি। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে একই নেটওয়ার্কের আরও চারজনকে আমরা হালিশহর থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছি।

আটক হওয়া চারজন হল, কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার মগনামা গ্রামের মাওলানা আবুল কালামের ছেলে মো.ফয়জুল হক (৩০) ও তার বোন রহিমা আক্তার (২১), বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জ উপজেলার কচুবুনিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আব্দুল হাই (৩৬) এবং জাহেদ (৩০) নামে এক যুবক।

র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোনের পরিচালক লে.কর্ণেল মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, জাহেদের বিষয়ে আমাদের আরও অনুসন্ধানের প্রয়োজন আছে। বাকি তিনজন জঙ্গি বলে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। জাহেদকে আপাতত গ্রেপ্তার না করে আমাদের হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা বিস্ফোরক ও সরঞ্জামের মধ্যে আছে, ১২ বোরের শটগানের ২৪ রাউন্ড গুলি, ২২ পিস বিভিন্ন ধরনের বিস্ফোরক তার, এক হাজার ২৩৫ পিস বিভিন্ন ধরনের বোমা বানানোর স্টিলের বোতল, ২৪ পিস খালি পাইপ, ৫০ কেজি অ্যালুমিনিয়াম, ৯’শ গ্রাম সোডিয়াম, ৩ কেজি ৮’শ গ্রাম অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট, আড়াই’শ গ্রাম সালফার, ৬ কেজি অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট, সাড়ে ৬ কেজি নাইট্রেট, ৫’শ গ্রাম ম্যাগনেশিয়াম পাউডার, ১০ কেজি সালফার, ৫’শ গ্রাম গান পাউডার, ১০ পিস সোডিয়াম আরও প্রায় ২৮ ধরনের ১৫০ কেজি রাসায়নিক সরঞ্জাম, ২ পিস রকেট ফ্লেয়ার, মাস্ক, হ্যান্ডগ্লাভস, সিরিঞ্জ, ১৮৩ জোড়া প্রশিক্ষণ জুতা।

র‌্যাবের দাবি, বাসায় যে পরিমাণ বিস্ফোরক পাওয়া গেছে তাতে দুই হাজার বোমা তৈরি সম্ভব।

আর র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ বলেছেন, হাটহাজারী, বাঁশখালী এবং হালিশহর থেকে যে পরিমাণ বোমা, অস্ত্র-গুলি ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে তা সেনাবাহিনীর একটি পূর্ণাঙ্গ ব্যাটেলিয়নের ইক্যুইপমেন্ট।

শেয়ার