যশোরে পৃথক অভিযানে দুই দিনে ২০ জন আটক

atok
নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ গত দুই দিনে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানা এবং বিভিন্ন ফাঁড়ি পুলিশের পৃথক অভিযানে ২০ জনকে আটক করেছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে গাড়ি পোড়ানো, হত্যাচেষ্টা, এবং মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।
আটককৃতরা হলো, শহরের পুলিশ লাইন টালিখোলার আয়নাল হোসেন, রফিকুল ইসলাম রহমত, শংকরপুরের পলাশ, সাইফুল ইসলাম, সিটি কলেজ পাড়ার রুবেল, মাসুদুর রহমান, রুবেল, চাঁচড়া রায়পাড়ার জাফর আলী, ঘোপ নওয়াপাড়ার সোহাগ হোসেন, পালবাড়ির মেহেদী হাসান, মুড়লী মোড়ের হারুন অর রশিদ, খোলাডাঙ্গার লুৎফর রহমান, সদর উপজেলার পাঁচবাড়িয়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম, সুজলপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম, মথুরাপুর মাঠপাড়ার আশরাফুল ইসলাম, কাজীপুর গ্রামের বেবী বেগম, লেবুতলার মতিউর রহমান, হাটবিলার জিল্লুর রহমান, মালঞ্চি গ্রামের মনিরুল ইসলাম ও নারায়নগঞ্জ জেলার ফতুল্লা এলাকার এরশাদ উল্লাহ ওরফে জনি।
পুলিশ জানায়, গতকাল শনিবার রাতে চাঁচড়া ফাঁড়ি পুলিশ অভিযান চালিয়ে নাজির শংকরপুর বাংলাদেশ টেকনিক্যাল কলেজের সামনে থেকে চারজনকে আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ২২২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। তারা হলো, সিটি কলেজ পাড়ার ইনছানের ছেলে রুবেল, রুহুল কুদ্দুসের ছেলে মাসুদুর রহমান, নীলগঞ্জের আবুল বাসারের ছেলে রুবেল ও শংকরপুরের শফিকুল ইসলামের ছেলে সাইফুল ইসলাম পিয়ারু। এছাড়া একই রাতে আটক করা হয় জিল্লুর রহমানকে। তিনি যশোর-খুলনা মহাসড়কের পদ্মবিলা এলাকায় গত ১৮ জানুয়ারি একটি বালুর ট্রাকে আগুন দেয়ার মামলার আসামি। অপরদিকে, সদর উপজেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য লুৎফর রহমানকে আটক করে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টাসহ বিভিন্ন অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। অন্যদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে মামলা এবং গেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। তাদের সকলকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার