গৌরবের শহীদ মিনারে যশোরবাসীর বিন্ম্র শ্রদ্ধা ॥ সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু আর রাজাকারমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয়

jila
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যথাযোগ্য মর্যাদায়, সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু আর রাজাকারমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে যশোরে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। এদিনের প্রথম প্রহরে যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন মহাবিদ্যালয়ে (এমএম কলেজ) অবস্থিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জেলা প্রশাসনসহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন পু®পস্তবক অর্পণ করে। এছাড়া শহরের বিভিন্ন স্থানে একুশের চেতনার উপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
রাত ১২টা এক মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর ভাষা শহীদদের প্রতি পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন। পরে জেলা পরিষদ, সরকারি মাইকেল মধুসূদন মহাবিদ্যালয়, পুলিশ প্রশাসন, জেলা আওয়ামী লীগ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, প্রেসক্লাব যশোরসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠন শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করে। আর যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি বিন¤্র শ্রদ্ধা জানিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তারসহ শিক্ষক ও কর্মকর্তারা।
শনিবার বিকেলে যশোর টউন হল মাঠে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুস সাত্তার, যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল মজিদ, এম এম কলেজের অধ্যক্ষ নমিতা রানী বিশ্বাস, মুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. আব্দুস শহীদ লাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, জাসদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য ইকবাল কবির জাহিদ, যশোর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক সুকুমার দাস, সিপিবির সভাপতি অ্যাড. আবুল হোসেন, জাসদের যশোর জেলা সমন্বয়ক হাচিনুর রহমান প্রমুখ।
জেলা প্রশাসন আয়োজিত এই আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, বাঙালির জাতিসত্ত্বা টিকিয়ে রাখতে আর একুশের চেতনা বাস্তবায়নে সরকারি প্রশাসনের সর্বস্তরে বাংলা ভাষা চালু করতে হবে। আর চলমান সহিংসতার প্রতিবাদে বক্তারা বলেন, যারা যুদ্ধাপরাধীদের সাথে নিয়ে সারাদেশে সহিংসতা ছড়াচ্ছে, পেট্রোল বোমা মেরে নিরীহ সাধারণ মানুষ হত্যা করছে তাদের সাথে আলোচনা হতে পারে না।
এছাড়াও মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে শনিবার আলোচনা সভা করে ইসলামি ফাউন্ডেশনসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন।
এদিকে, মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে যশোর সরকারি মধুসূদন মহাবিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পণের জন্য রাত ১১টার পরপরই বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ জড়ো হতে থাকে। ২১ ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহর ছাড়াও সকালে অনেকে শহীদের প্রতি ফুলেল শ্রদ্ধা জানান। রাত ১২ টার পর পর ধারাবাহিকভাবে জেলা জাসদ, জেলা জাতীয়পার্টি, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির যশোর জেলা শাখা, শহর আওয়ামী লীগ, জেলা কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, জেলা ছাত্রলীগ, ছাত্রলীগ এমএম কলেজ শাখা, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোর, যশোর সংবাদপত্র পরিষদ, দৈনিক সমাজের কথা পরিবার, দৈনিক স্পন্দন পরিবার, গ্রামের কাগজ পরিবার, দৈনিক কল্যাণ পরিবার, ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বিএমএ যশোর জেলা শাখা, রোটারী ক্লাব অব যশোর সেন্ট্রাল, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী যশোর জেলা শাখা, উপশহর ডিগ্রি কলেজ, জাতীয় ছাত্র সমাজ, যশোর পৌরসভা, যশোর ইন্সটিটিউট, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ যশোর জেলা শাখা, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রী যশোর জেলা শাখা, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রী এম এম কলেজ শাখা, সিপিবি যশোর জেলা শাখা, বাসদ (মার্কস বাদী) জেলা শাখা, জেলা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, জেলা আইনজীবী সমিতি, জেলা যুব মৈত্রী, ছাত্রদলসহ বিভিন্ন সংগঠন ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানায়। জেলা বিএনপি, জেলা যুবলীগ, জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন সকালে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায়।

শেয়ার