যশোরে পুলিশের সহায়তায় বাড়ছে ‘বন্য ব্যবসা’!

jowno bebosha
লাবুয়াল হক রিপন॥
দফায় দফায় অভিযান চালিয়েও বন্ধ করা যাচ্ছে না যশোর আবাসিক হোটেল মালিকদের অনৈতিক ব্যবসা। শহরের অধিকাংশ আবাসিক হোটেল থেকে বিভিন্ন সময় ‘নিশি বন্ধুরা’ আটক হলেও মালিক, ম্যানেজার বা সংশ্লিষ্ট হোটেলের বিরুদ্ধে কোন কার্যকরী ব্যবস্থা না নেওয়ায় থামাছে না ভ্রাম্যমাণ পতিতাদের দিয়ে করানো অনৈতিক তৎপরতা। তাই অনেকটা পুলিশের ‘সহায়তায়’ দিন দিন শহরের আবাসিক হোটেলগুলোতে বাড়ছে আদিম যুগের এ ‘বন্য ব্যবসা’।
সূত্র জানায়, বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন নিয়ে যশোর শহরে ৪৪টি আবাসিক হোটেল ব্যবসা করছে। লাইসেন্স অনুযায়ী আবাসিক হোটেলে পুরুষ ও মহিলা উভয়কেই সিট ভাড়া দেওয়া যায়। কিন্তু এ নিয়ম অনুসারে নারীসহ পুরুষকে হোটেলে থাকতে দিলে পুলিশ বাধা দেয়। অনৈতিক কাজের অভিযোগ তুলে তারা সংশ্লিষ্ট হোটেলের কাছে চাঁদা দাবি করে। ফলে এক প্রকার বাধ্য হয়ে হোটেল ব্যবসা চালিয়ে নিতে অনেকে পতিতাদের দিয়ে ‘কামিয়ে’ তা দিচ্ছেন পুলিশকে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক হোটেল মালিক জানান, তারা বৈধভাবে ব্যবসা করতে গেলে পুলিশকে চাঁদা দিতে পারেন না। কিন্তু তাদের মাসিক চাঁদা না দিলে হোটেল সিল গালা করে দেন। তাই পতিতাদের দিয়ে তারা অধিক আয়ের পথ খুজতে বাধ্য হন।
যশোর কোতোয়ালি মডেল থানা সূত্রে জানা যায়, গত বছর ৯ সেপ্টেম্বর শহরের রেলগেট এলাকার শাহরিয়ার হোটেল থেকে কেশবপুরের গোলাম মোস্তফাকে এক নারীসহ আটক করা হয়। একই বছর নভেম্বর মাসে এক সপ্তাহের ব্যবধানে ম্যাগপাই এবং আরএস আবাসিক হোটেল থেকে আটক করা হয় রানী বেগম ও কোমল রায়কে। এর আগে ২১ অক্টোবর উপশহরের স্বপ্না আবাসিক হোটেল থেকে খরিদ্দারসহ এক যৌনকর্মীকে আটক করা হয়। আর আগস্ট মাসে শহরের বড়বাজারে অবস্থিত হোটেল সিটি থেকে খরিদ্দার, যৌনকর্মী ও হোটেল বয়কে আটক করে পুলিশ। এছাড়াও শহরের ৪৪টি আবাসিক হোটেলের অধিকাংশে অভিযান চালিয়ে পুলিশ যৌনকর্মীসহ খরিদ্দারদের আটক করে। কিন্তু এসব ঘটনায় হোটেল শাহরিয়ার মালিক ও হোটেল সিটির এক কর্মচারীর নামে মামলা করা হয়েছে। বাকি ঘটনাগুলোতে অদৃশ্য কারণে অভিযুক্ত আবাসিক হোটেলগুলোর বিরুদ্ধে পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।
এব্যাপারে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইনামুল হক জানান, আবাসিক হোটেলে যৌন ব্যবসা বন্ধ করতে বিভিন্ন সময় অভিযান চালানো হয়। এছাড়া অনেককে আটক করে মামলাও দেয়া হয়েছে।

শেয়ার