ভারতে কারাভোগের পর শ্যামনগর হয়ে দেশে ফিরলেন ১১১ জেলে

jele
সরদার সিদ্দীক, শ্যামনগর॥ বৈরী আবহাওয়ার কারণে সাগরে মাছ ধরতে যাওয়া ১১১ জন বাংলাদেশি জেলে পশ্চিমবঙ্গের আলীপুর সেন্টাল জেলে দীর্ঘদিন আটক থাকার পর অবশেষে মুক্তি পেয়ে দেশে ফিরলেন। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টার দিকে ছয়টি মাছ ধরা ট্রলারসহ তাদের বাংলাদেশ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে ভারতীয় পুলিশ।
সাতক্ষীরার শ্যামনগরের সুন্দরবন লাগোয়া বিজিবির কৈখালি ক্যাম্প এলাকায় ভারতের সন্দেশখালি থানা পুলিশ তাদের নিয়ে আসে। সৌহার্দপূর্ন পরিবেশে শ্যামনগর থানা পুলিশ তাদের গ্রহন করে। বাংলাদেশ ভারতের জলসীমা নির্ধারনকারী নদী কালিন্দির মধ্যভাগে এই হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। এ সময় ভারতীয় বিএসএফএর সমসেরনগর ক্যাম্প এবং বিজিবির কৈখালি রিভারাইন সদস্যরা হস্তান্তর কাজে সহায়তা করেন। জেলেদের ব্যবহৃত ট্রলার এমভি জাহানারা, এমভি আনোয়ারা, এমভি আল্লাহর দান ২, এমভি রহিমা ও এমভি ইসরাত জাহান খেয়ার মালিক কবির হোসেন, নুর ইসলাম, নুর মোহাম্মাদ, জামাল মোল্লা ও মো. বাবুল উপস্থিত ছিলেন। বিজিবির নীলডুমুর ৩৪ ব্যাটালিয়নের উপাধিনায়ক মেজর মামুন জানান মুক্তি পাওয়া ১১১ জেলের মধ্যে কক্সবাজারের ৬১ জন, পটুয়াখালির ১৮ জন, বরগুনার ১৭ জন, বাগেরহাটের ১৩ জন এবং ভোলা ও বরিশালের একজন করে রয়েছেন। তারা সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে বৈরী আবহাওয়ার কারণে দিক হারিয়ে ভারতীয় জলসীমায় ঢুকে পড়ে। এ সময় বিএসএফএর রিভার উইং তাদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। তারা প্রত্যেকে তিন থেকে পাঁচ মাসের সাজা ভোগ করেন। পরে আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদেরকে আলীপুর সেন্ট্রাল জেল থেকে মুক্ত করা হয়। মুক্তি পাওয়া জেলেদের গ্রহনকারী শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুর রহমান বিপ্লব জানান তাদেরকে তাদের পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

শেয়ার