ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে আশাবাদী মিসবাহ

misbah
সমাজের কথা ডেস্ক॥
এবারের বিশ্বকাপে ঠিক কত রান করলে তা চ্যালেঞ্জিং স্কোরে দাঁড়াবে তা বলা মুশকিল। ন্যুনতম তিনশ পার করা তো আবশ্যক। এখন পর্যন্ত শেষ হওয়া ম্যাচগুলোর পরিসংখ্যান সে কথাই বলে। কিন্তু, পাকিস্তানের ব্যাটিং সেই ইঙ্গিত দিচ্ছে না। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে মিসবাহ-আফ্রিদিরা নিজেদেরকে এখনো সেভাবে মেলে ধরতে পারেননি।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দু’টি ওয়ানডে ম্যাচের প্রথমটিতে ২১০ এবং পরেরটিতে ২৫০ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। আর বিশ্বকাপ আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে ২২৪ রানে অলআউট হয়ে ৭৬ রানের লজ্জাজনক পরাজয় বরণ করে মিসবাহরা।

অবশ্য, বিশ্বকাপের দু’টি প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টার্গেটে নেমে স্বস্তির জয় পায় পাকিস্তান। এবারের আসরে বোলারদের দাপটের কথা বলা হলেও এখন পর্যন্ত প্রতিটি ম্যাচেই কোনো না কোনো দলের ব্যাট থেকে রানের ফোয়ারা ছুটছেই। অভিজ্ঞ ও তরুণদের সমন্বয়ে গড়া পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপ সেদিকে যেতে পারবে কিনা তা সময়েই বলে দিবে।

পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ উল হক বলেন, ‘দলের ব্যাটিং নিয়ে কিছুটা আতঙ্ক থাকলেও তা দীর্ঘস্থায়ী হবে না। দ্বিতীয় ম্যাচেই আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হচ্ছি। আশা করছি ঐ ম্যাচেই সব চিন্তার অবসান ঘটবে।’

অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান আরও বলেন, ‘প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনকভাবে হেরেছি। যেটি আমাদের কারোই কাম্য ছিল না। আমাদের বেশ কয়েকজন ভালো মানের ব্যাটসম্যান রয়েছে। ইনিংসের শুরুতে ভালো করতে পারলে বড় স্কোর দাঁড় করানো সম্ভব।’

পাকিস্তান-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ দু’দলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ সেটিও স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন মিসবাহ। তিনি বলেন, ‘উভয় দলেরই ম্যাচ জেতা প্রয়োজন। আমরা মানসিকভাবে এই ম্যাচের জন্য প্রস্তত। বিশ্বকাপে ভালো করতে হলে ম্যাচ জেতার বিকল্প নেই। সবাই নিজের সেরাটা দিতে পারলে ফলাফলটা আমাদের পক্ষেই আসবে।’

উল্লেখ্য, ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ সময় ভোর চারটায় দু’দলের মধ্যকার ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

শেয়ার