শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ভারতের পরমাণু চুক্তি

sri

সমাজের কথা ডেস্ক॥ নতুন প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার প্রথম বিদেশ সফরকালে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে পরমাণু শক্তি চুক্তি সই করেছে ভারত।

সোমবার নয়দিল্লিতে চুক্তি সই করার পর সিরিসেনা বলেছেন, “এটি আমার প্রথম সফর, এই সফর খুব ফলপ্রসু হচ্ছে।”

অপরদিকে এক বিবৃতিতে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, “বেসামরিক পরমাণু সহযোগিতার এই দ্বিপাক্ষিক চুক্তি আমাদের পারস্পরিক আস্থার আর একটি নজির।”

দেশ দুটি প্রতিরক্ষা খাতে সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়েও একমত হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোদী। তবে বিস্তারিত আর কিছু বিবৃতিতে বলা হয়নি।

পরমাণু চুক্তি অনুযায়ী, শ্রীলঙ্কার পরমাণু বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপনে ভারত সহযোগিতা করবে। এসব সহযোগিতার মধ্যে কর্মী প্রশিক্ষণও অন্তর্ভুক্ত আছে বলে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

এই চুক্তি অনুযায়ী পরবর্তী সময়ে শ্রীলঙ্কায় ছোট ধরনের হাল্কা পরমাণু চুল্লিও রপ্তানি করতে পারবে ভারত, বলেছেন ভারতীয় বিশ্লেষকরা।

অপরদিকে শ্রীলঙ্কার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ২০৩০ সালের মধ্যে ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন পরমাণু স্থাপনা বাস্তবায়নের পরিকল্পনা আছে শ্রীলঙ্কার।

জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথম বিদেশ সফরে ভারতে এসেছেন সিরিসেনা।

সিরিসেনার এই সফরের সময় শ্রীলঙ্কার সঙ্গে নাজুক হয়ে পড়া মিত্রতা আবার ঘনিষ্ঠ করার সুযোগ পেয়েছে ভারত।

সিরিসেনার পূর্ববর্তী লঙ্কান প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসের সময় ভারতে-শ্রীলঙ্কার দীর্ঘদিনের মিত্রতার সম্পর্কে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছিল। বিভিন্ন পরিস্থিতিতে রাজাপাকসে ভারতের আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী চীনের দিকে ঝুঁকে পড়েছিলেন।

কিন্তু জানুয়ারির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন হওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

আগামী মাসে শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপ সফরে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন মোদী। এই দুটি দেশেই চীন সমুদ্র বন্দর ও বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণের মধ্যদিয়ে নিজেদের কূটনৈতিক প্রভাব বিস্তার করেছে।

শেয়ার