কোপেনহেগেনে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ২

Denmark
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে এক ঘণ্টার ব্যবধানে পৃথক দুটি সন্ত্রাসী হামলায় দু’জন নিহত হয়েছেন। এসব হামলায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে পাঁচ জন। এদের মধ্যে চার জন পুলিশ সদস্যও রয়েছেন।

রোববার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে প্রথমে একটি ক্যাফের উন্মুক্ত বিতর্ক অনুষ্ঠানে এবং পরে ইহুদীদের একটি প্রার্থনাকেন্দ্রে গুলি চালায় সন্ত্রাসীরা।

‘শিল্প, নাস্তিকতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা’ শীর্ষক ক্যাফের ঐ আলোচনা অনুষ্ঠানে সুইডেনের বিতর্কিত কার্টুনিস্ট লার্স ভিকস্ অংশ নিয়েছিলেন বলে জানা যায়। মহানবী মোহাম্মদের (স.) ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন আঁকার কারণে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছিল বলে দাবি করা হয়ে থাকে। তবে, এ ঘটনায় তিনি অক্ষত রয়েছেন বলে জানা গেছে। এ হামলায় তিন পুলিশ সদস্য আহত হন।

এছাড়া ওই বিতর্ক অনুষ্ঠানে ডেনমার্কে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত ফ্যাংকোস জিমেরিও উপস্থিত ছিলেন। তবে এ হামলায় তিনিও অক্ষত আছেন বলে তার টুইট বার্তায় জানা যায়। তিনি এই হামলাকে জানুয়ারির শার্লে হেবদো হামলার মতই ভয়াবহ বলে আখ্যায়িত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী নিলস আইভার লারসেন বলেন, আমি স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র দিয়ে গুলি করার শব্দ শুনতে পেয়েছিলাম। এরপর পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে বারের পেছনে লুকিয়ে পড়ি।

প্রথম হামলার এক ঘণ্টা পরেই কোপেনহেগেনের একটি ইহুদী প্রার্থনাকেন্দ্রে গুলি চালায় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় একজনের মাথায় গুলি লাগলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তার মৃত্যু হয়। এ সময় এক পুলিশ সদস্যসহ দু’জন আহত হন।

দেশটির পুলিশবাহিনীর মুখপাত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম জানায়, হামলা দু’টি একই পরিকল্পনায় হয়েছে কিনা তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি এবং হামলাকারীদের কাউকেই আটক করা সম্ভব হয়নি।
প্রথম হামলার পর ডেনমার্কের প্রধানমন্ত্রী হেল থর্নিং স্মিট হামলাটিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সন্ত্রাস বলে মন্তব্য করেন।

শেয়ার