শুরু হলো ব্যাট-বলের বিশ্বযুদ্ধ

icc

সমাজের কথা ডেস্ক॥ কত অপেক্ষার প্রহর পার হয়েছে, কত আলোচনা শেষ হয়ে গেছে। বছর মাস, দিন, ঘণ্টা, মিনিট এবং সবশেষ সেকেন্ডে এসে থেমে গেছে কাউন্টডাউনের ঘড়ির কাঁটা। চার বছর অপেক্ষার প্রহর শেষে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে যখন সোনালি কয়েনটা আকাশে উড়েছে তখন বাংলাদেশ ঘুমিয়ে। ঘড়ির কাঁটায় ভোর চারটা। রাত তখনও শেষ হয়নি। কিন্তু বেজে গেছে ক্রিকেট বিশ্বযুদ্ধের রণদামামা।
শহুরের যান্ত্রিকতায় হয়তো শীত উধাও। গ্রামে তো শেষ রাতে এখনও ঝাঁকিয়ে শীত নামে। সুতরাং, কম্বলের গরম ওম ঠেলে রেখে কয়েক হাজার মাইল দুরের সেই সোনালি কয়েন নিক্ষেপে কে জিতল না জিতল, তাতে কার কী আসে যায়! কিন্তু ক্রিকেট পাগল মানেই স্থান-কাল-পাত্র বিশেষে কোন ভেদাভেদ নেই। সবাই মজে উঠবে ক্রিকেটের উন্মাদনায়। রাতজাগা পাখির মতো ব্যাট-বলেল উত্তাপ পেতে তারাও বসে থাকবে ব্রেন্ডন টেলর আর কুমারা সাঙ্গাকারার টস করার দৃশ্যটি দেখার জন্য।
আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন তো হয়ে গেছে একদিন আগেই। ক্রাইস্টচার্চের এই হ্যাগলি ওভালেই উদ্বোধনের আতশবাজির আলোকচ্ছটা আলোকিত করে তুলেছিল পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। এরপর যার সঙ্গে যোগ দিয়েছিল মেলবোর্ন। একদিন পর মাঠে গড়াচ্ছে ময়দানি লড়াই। ১৪টি দল, ২১০জন ক্রিকেটার আর মাত্র একটি শিরোপা। এই একটি শিরোপার জন্যই লড়াই করবে ১৪ দেশের ২১০জন ক্রিকেটার? কে জিতবে? প্রশ্নটা তুলে রাখতে হবে ২৯ মার্চের মেলবোর্ন ফাইনাল পর্যন্ত। তার আগে ব্যাট-বলে চার-ছক্কার দুন্ধুমার লড়াই।
উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি শ্রীলংকা আর নিউজিল্যান্ড। এর প্রায় সাড়ে ৪ ঘণ্টা পর মেলবোর্নে মুখোমুখি হবে ক্রিকেটের ঐতিহ্যবাহী দুই দেশ ইংল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়া।
২০৫৫১১.৩এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে ফিরে আসবে যেন ওয়ানডে ক্রিকেটের জন্মলগ্নের ইতিহাসও। এই মাঠেই যে ১৯৭১ সালের ৫ জানুয়ারি প্রথম ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া আর ইংল্যান্ড! যে ম্যাচটি জয় করে ইতিহাসের পাতায় নিজেদের নাম লিখিয়ে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ানরা। এই মাঠে আরও কত মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দেশ! কিন্তু, বিশ্বকাপের উদ্বোধনী দিনের এই ম্যাচটি নিশ্চিতভাবেই আলাদা গুরুত্ব বহন করছে। অসিদের কাছে মর্যাদা ধরে রাখার লড়াই আর ইংলিশদের কাছে মর্যাদা ফিরে পাবার লড়াই।
কে জিতবে? এ প্রশ্নটাও তোলা থাক। কারণ ক্রিকেট তো এমনিতেই গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা। এমন একটি অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে কে করতে যাবে ভবিষ্যৎবানী! যদিও, সাম্প্রতিক ফর্ম আর পারফরম্যান্সের বিচারে প্রথম দিনের দুটি ম্যাচের জন্য ফেভারিট হিসেবে ধরে নেওয়া যায় স্বাগতিক দুই দেশ নিউজিল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়াকেই।

নিউজিল্যান্ড দুই মাস ধরে তাদের দেশে থাকা শ্রীলংকাকে গো হারা হারিয়েছে। আর ইংল্যান্ড ত্রি দেশীয় সিরিজে নাস্তানাবুদ হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার কাছে। একই সঙ্গে র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষেস্থান নিয়েই কিন্তু অসিরা বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছে। যদিও ইনজুরি থেকে ফিরে আসার পর এখনও পুরোপুরি ফিট না হওয়ার কারণে দলে নেই অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। পরিবর্তে অসিদের নেতৃত্ব দেবেন জর্জ বেইলি।

সব অপেক্ষার প্রহর শেষ, বিচার-বিশ্লেষণও শেষ। এখন শুধু দেখার বিষয়, বিশ্বকাপের চাপকে জয় করে শেষ পর্যন্ত কে জয় তুলে নিতে পারে!

শেয়ার