দানবের কাছে হারব না: শেখ হাসিনা

PM
সমাজের কথা ডেস্ক॥ নাশকতাকারীদের ‘দানব’ আখ্যায়িত করে তাদের কঠোরভাবে দমনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বৃহস্পতিবার গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুরে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ৩৫তম জাতীয় সমাবেশের কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, “যারা অকারণে সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মারছে; তারা কি মানুষ, না দানব? আমরা এই দানবদের কোনো ছাড় দেব না। দানবের কাছে মানুষ হারতে পারে না। আমরা এই দানবদের প্রতিহত করে দেশের শান্তি ফিরিয়ে আনব।”
এক মাসের বেশি সময় ধরে বিএনপি-জামায়াত জোটের লাগাতার অবরোধে নাশকতায় প্রায় ৭০ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এদের অধিকাংশ মারা গেছেন গাড়িতে দেওয়া আগুনে দগ্ধ হয়ে।
শেখ হাসিনা বলেন, ২০ দল আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে।
“এটা কি রাজনীতি? বিএনপি-জামায়াত জোট যা করছে, তা জঙ্গি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ। দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই বিএনপি-জামায়াত দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে ধ্বংসযজ্ঞে মেতে উঠেছে। পেট্রোল বোমা মেরে সাধারণ মানুষকে হত্যা করছে।”
“তারা ধর্মের কথা বলে, কিন্তু তারা বিশ্ব ইজতেমা, মহানবীর জন্ম-ওফাত দিনেও তারা হরতাল-অবরোধ দিয়েছে। ১৫ লাখ শিক্ষার্থীর এসএসসি পরীক্ষা হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছে। কোটি কোটি শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দিয়েছে। এরা দেশকে অন্ধকারে ঠেলে দিতে চায়।”
বক্তব্যে শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নে গত ছয় বছরে তার সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন।
আনসার বাহিনীর উন্নয়নে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে তিনি বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর এই বাহিনীকে জাতীয় পতাকা প্রদান করা হয়। ব্যাটালিয়ন আনসারদের চাকরি স্থায়ীকরণের সময়সীমা ১৫ বছর থেকে কমিয়ে ৯ বছর করা হয়। আরও কমানো যায় কি না, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।
ব্যাটালিয়ন আনসারদের মূল বেতনের ৩০ শতাংশ ঝুঁকি ভাতা দেওয়া, টাইম স্কেল, দুইটি বার্ষিক বর্ধিত বেতন ছাড়াও রেশন ভাতা ৫০ থেকে ৮০ টাকায় উন্নীত করার কথাও বলেন তিনি।

শেয়ার