সাগরে নিখোঁজ ৩শ’ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

nik
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ভূমধ্যসাগরে যন্ত্রচালিত নৌকা ডুবে নিখোঁজ দুইশ’র বেশি অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।
জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) বুধবার জানায়, খুব সম্ভবত ওই অভিবাসীরা লিবিয়া থেকে ইতালিতে পৌঁছনোর চেষ্টা করেছিল। ঝড়ো আবহাওয়ার কারণে নৌকা দুইটি ডুবে যায়।

‘ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন’ (আইওএম) জানায়, অভিবাসীরা লিবিয়া উপকূল থেকে শনিবার দুইটি নৌকায় করে সমুদ্রে রওনা হয়।

নৌকা দুইটির প্রত্যেকটিতে একশ’র বেশি যাত্রী ছিল। খুব সম্ভবত সোমবার নৌকা দু’টি উল্টে যায়।

ইতালিতে ইউএনএইচসিআর এর মুখপাত্র কার্লত্তা সামি টুইটারে জানান, “সমুদ্র থেকে চার দিনে নয় জনকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এছাড়া, ভাসমান অবস্থায় আরো ২০৩টি মৃতদেহ পাওয়া গেছে।”

ওই পরিস্থিতিকে ‘ভয়ঙ্কর ও অপূরণীয় ক্ষতি’ বলে বর্ণনা করেছেন তিনি।

ইতালির একটি টাগ বোট সোমবার ল্যাম্পেদুসা দ্বীপের কাছ থেকে ৯ জনকে জীবিত উদ্ধার করে। তারা দুইটি আলাদা নৌকায় ছিল। তাদেরকে বুধবার ভোরে ইতালির ল্যাম্পাদুসা দ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়।

ওই টাগ বোটটি আরো ২২ জনকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করেছিল। কিন্তু নৌযানটির খোলা ডেকে ১৮ ঘণ্টার বেশি সময় পড়ে থাকায় তারা হাইপোথারমিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

ইউএনএইচসিআর এর আরেক মুখপাত্র বারবারা মলিনারিও রয়টার্সকে জানান, জীবিত উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিরা বলেছে, তাদের সঙ্গে একইদিনে তৃতীয় আরেকটি নৌকায়ও রওয়ানা হয়েছিল। পরে সেটি নিখোঁজ হয়ে যায়।

জীবিত উদ্ধার হওয়া নয় জনের সবাই ফ্রেঞ্চ ভাষায় কথা বলে। ধারণা করা হচ্ছে তারা পশ্চিম অফ্রিকার কোন দেশ থেকে এসেছে।

শেয়ার