বার্ন ইউনিটে গিয়ে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী

pm
সমাজের কথা ডেস্ক॥

হরতাল-অবরোধের নামে পেট্রোল বোমা হামলায় দগ্ধদের দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে গিয়ে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বুধবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে নয়টায় ঢামেক বার্ন ইউনিটে যান প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি পেট্রোলবোমায় দগ্ধ রোগীদের কথা শোনেন এবং তাদের মাথায় হাত বোলান। এক পর্যায়ে কেঁদে ফেলেন তিনি।
যাত্রাবাড়ীতে বাসে পেট্রোল বোমা হামলায় দগ্ধ ফার্মাসিস্ট দম্পতি সাহিদা ফাতেমা জামান ও তার স্বামী ইয়াসিন আরাফাত। তাদের ষোল মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ইয়াসিন এরই মধ্যে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফিরে গেছেন। তবে ফাতেমা জামান এখনও ঢামেক বার্ন ইউনিটের আইসিইউ’র বিপরীত পাশে অবস্থিত পোস্ট অপারেটিভ ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছেন।
প্রধানমন্ত্রীর আসার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে ফাতেমা বাংলানিউজকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী আসলেন, বিশ্বাসই হচ্ছে না। কেঁদেই ফেললাম। তাকে বললাম, আমরা স্বামী-স্ত্রী দু’জনেই ফার্মাসিস্ট। মানুষের জন্য ওষুধ বানাই। প্রধানমন্ত্রী ধৈর্য্য সহকারে আমাদের কথা শুনলেন। নিজেও কাঁদলেন। বললেন, দোয়া করি, দ্রুত সুস্থ হয়ে সন্তানের কাছ ফিরে যাও।
এ সময় প্রধানমন্ত্রী এখানে (বার্ন ইউনিটে) চিকিৎসাধীন আমাদের সবার হাতে একটি করে দশ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্রের চেক তুলে দেন- বলেন ফাতেমা।

শেয়ার