ঝালকাঠিতে পিপি হত্যা মামলায় ৫ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ড

Jhalakati
সমাজের কথা ডেস্ক॥

ঝালকাঠির চাঞ্চল্যকর পিপি অ্যাডভোকেট হায়দার হোসেন হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির পাঁচ সদস্যের মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল হালিম এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদ-প্রাপ্তরা হলেন- রাজশাহীর বশির হোসেনের ছেলে সদস্য আমিনুল ইসলাম ওরফে আমির হোসেন, বরগুনার রহিম আকন্দের ছেলে আবু শাহাদাত তানভীর, খুলনার টুটপাড়ার মোশারেফ হোসেনের ছেলে মুরাদ হোসেন, বরগুনার তালতলা গ্রামের শফিজুদ্দিনের ছেলে বেল্লাল হোসেন ও ঢাকার উত্তরখান এলাকার শামসুদ্দিনের ছেলে সগির হোসেন।

তাদের মধ্যে- আমির হোসেন, শাহাদাত হোসেন ও মুরাদ হোসেন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। অপর দুই আসামি বেল্লাল হোসেন ও সগির হোসেন পলাতক রয়েছেন।

মামলায় সরকার পক্ষের আইনজীবী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত সরকারি কৌসুলি এম আলম খান কামাল বাংলানিউজকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন- নিহত হায়দার হোসেনের পরিবারের সদস্যরা। একমাত্র ছেলে তারিক বিন হায়দার বলেন, এ রায়ে আমরা খুশি হয়েছি। এ জন্য বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানাই।

২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর সকালে জেএমবির বোমা হামলায় ঝালকাঠি আদালতের বিচারক সোহেল আহম্মেদ এবং জগন্নাথ পাড়ে নিহত হন।

এ মামলায় সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের তৎকালীন সরকারি কৌসুলি হায়দার হোসাইন। ২০০৬ সালের ২৯ মে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রেজা তারিক আহমদ সাত জঙ্গির ফাঁসির আদেশ দেন।

জেএমবি প্রধান শায়খ আবদুর রহমান এবং সেকেন্ড ইন কমান্ড সিদ্দিকুর রহমান ওরফে বাংলা ভাইসহ শীর্ষ সাত জঙ্গির ফাঁসির আদেশ কার্যকর হয় ২০০৭ সালের ২১ মার্চ ।

শায়েখ আবদুর রহমানসহ জেএমবির শীর্ষ নেতাদের ফাঁসির আদেশ কার্যকর হওয়ার ২০ দিন পর ২০০৭ সালের ১১ এপ্রিল মামলা পরিচালনাকারী সরকারি কৌসুলি হায়দার হোসাইনকে গুলি করে হত্যা করে জেএমবি সদস্যরা। এ ঘটনার পরদিন নিহতের ছেলে তারিক বিন হায়দার বাদী হয়ে ঝালকাঠি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) উপ-পরিদর্শক মোশারেফ হোসেন হত্যার ঘটনার প্রায় তিন বছর পর ২০১০ সালের ১৭ জানুয়ারি জেএমবির পাঁচ সদস্য বেল্লাল, শাহাদাত, তানভীর, মুরাদ, ছগির ও আমিরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ সাত বছর পরে বুধবার এ হত্যাকা-ের রায় ঘোষণা করা হয়।

শেয়ার