মোবারকগঞ্জ সুগারমিলের পরিবহন বিভাগে দুর্নীতি॥ প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ভুয়া ভাউচারে অর্ধলাখ টাকা হজমের অভিযোগ

mobarak gonj sugar mil
নয়ন খন্দকার, কালীগঞ্জ॥ মোবারকগঞ্জ চিনিকলের পরিবহন বিভাগ (গ্যারেজ শাখা) থেকে কোন কাজ না করেই ভুয়া বিল ভাউচারে প্রায় অর্ধ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিবছর আখ মাড়াই মৌসুমে কাজ না করেই ট্রাক ও টলি মেরামত এবং যন্ত্রাংশ খরিদের নামে লাখ লাখ টাকা আত্মসাত করে পরিবহণ বিভাগ। সম্প্রতি প্রকৌশলী কামরুজ্জামান মিলের দুটি ট্রাক মেরামত দেখিয়ে ভুয়া বিলের মাধ্যমে ৪৩ হাজার টাকা হজম করেছেন বলে সুত্রে জানা গেছে। এনিয়ে মিল অভ্যন্তরে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট একাধিক সুত্র জানায়, লোকসানী এই প্রতিষ্ঠানটির রক্ষায় মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেলোয়ার হোসেন যখন সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও চিনি শিল্প কর্পোরেশনের নির্দেশে সাশ্রয়নীতিসহ বিভিন্ন বিভাগে ব্যয় হ্রাস নীতি অনুস্মরণ করছেন ঠিক সেই সময় পরিবহন বিভাগের রাঘব বোয়ালরা পাল্লা দিয়ে ভুয়া বিল ভাউচারে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিতে শুরু করেছেন। এরফলে সহস্রাধিক শ্রমিক-কর্মচারীর রুটি রুজির এই চিনি কলটি ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করা বেশ কঠিন হবে বলে মনে করছেন সচেতনমহল। সুত্রমতে, গত ২ ফেব্রুয়ারি গ্যারেজ ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান মিলের আখসহ অন্যান্য মালামাল পরিবহন কাজে ব্যবহৃত যশোর-ট-১০১৯ এবং যশোর-ট-৯৪৪ নং দুটি ট্রাকের খুচরা যন্ত্রাংশ ক্রয় ও মেরামত কাজ দেখিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ” কালীগঞ্জ ঝিনাইদহ নামীয় প্রতিষ্ঠানের নামে ৪৩ হাজার টাকার একটি ভুয়া বিল ভাউচার সৃষ্টি করে পুরো টাকা হজম করেছেন। (যার গেটপাশ চালান নং- ১১৪৪ এবং ডেলিভারি চালান নং- মোচিক/পরি/গ্যারেজ-৩৯/১৩-১৪/৪৭,তাং- ০৪/১১/২০১৪)। এমনকি কোন বড় ধরনের মেরামত কাজ করা হয়নি। চিনি কলের হিসাব বিভাগের কর্মরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক কর্মচারী জানান, মেসার্স তরুন ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপের নামে প্রতি মৌসুমে লাখ লাখ টাকার মেরামতি কাজের বিল উত্তোলন করা হয়। যারমধ্যে বেশির ভাগই কাজ না করে বিল দাখিল করা হয়। সাধারণ শ্রমিক কর্মচারীদের অভিযোগ এসমস্ত ঘটনার মূল নায়ক দূর্নীতিবাজ গ্যারেজ ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান। উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত হলে এই সমস্ত ভুয়া বিল আত্মসাতের ঘটনা ধরা পড়বে। এ ঘটনা নিয়ে চিনিকলে কয়েকদিন ধরে তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইঞ্জিনিয়ারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনাটি অস্বীকার করে বলেন, প্রতিবছর পুরাতন কিছু যন্ত্রাংশ মেরামত করে কাজ করা হয়।

শেয়ার