জঙ্গিবাদের কাছে ‘সারেন্ডার’ নয়: শেখ হাসিনা

PM
সমাজের কথা ডেস্ক॥ অবরোধ-হরতালের মধ্যে পেট্রোল বোমা হামলার মতো জঙ্গিবাদী কার্যক্রমে সরকার নতি স্বীকার করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলের বিরামহীন অবরোধ কর্মসূচিতে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ মারার ঘটনাগুলো তুলে ধরে তিনি বলেছেন, “বাঙালি সব সময় অপরাজেয়। অন্যায়ের কাছে কখনও আমরা মাথা নত করি না।
“এবারও আমরা এই অন্যায়-অপরাধের কাছে কখনোই মাথা নত করব না। জঙ্গীবাদের কাছে আমরা কখনও সারেন্ডার করব না।”
অবরোধের মধ্যে পেট্রোল বোমা হামলায় গাইবান্ধা ও বরিশালে আটজনের মুত্যুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে শনিবার রেডিসান হোটেলে আন্তর্জাতিক রোটারি শান্তি সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।
আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা একদিন আগেই বিএনপি জোটের চলমান আন্দোলনের দিকে ইঙ্গিত করে বলেছিলেন, “খালেদা জিয়া ও জামায়াতের কর্মকান্ড এবং আইএসের কর্মকান্ডে কোনো পার্থক্য দেখি না।”
মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গি সংগঠন আইএস সম্প্রতি জর্ডানের এক পাইলটকে খাঁচায় বন্দি অবস্থায় আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করে, যা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বেশ আলোচিত।
রোটারির অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গোটা দেশের মানুষ পেট্রোল বোমা আতঙ্কে এক দুর্বিষহ সময় পার করছেন। ঘাতকদের ছোড়া পেট্রোল বোমায় এ পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক মানুষ পুড়ে মারা গেছেন। কয়েকশ’ মানুষ হাসপাতালের বেডে অমানুষিক নরক যন্ত্রণায় দিন কাটাচ্ছেন। পোড়া মানুষের গন্ধে বার্ন ইউনিটের বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে।
এই অবস্থা থেকে উত্তরণে সরকারের সচেষ্ট থাকার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “এ হিংস্র হায়েনাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সমগ্র জাতি রুখে দাঁড়াবে। এদের পরাজিত করে আমরা দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করব। এটা আমাদের প্রতিজ্ঞা। ইনশাল্লাহ, আমরা একাজে সফল হব।”

বিএনপি জোটের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলে শেখ হাসিনা বলেন, “নিরীহ মানুষকে এভাবে হত্যা করে কী অর্জন করতে পারবে, সেটাই আমার প্রশ্ন?
“রাজনীতির নামে সাধারণ মানুষকে এভাবে পুড়ে মেরে ফেলার মতো নৃশংসতা আমাদের দেশে আমরা আর কখনও দেখিনি।”
৫ জানুয়ারির নির্বাচন বন্ধে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে পুলিশ-বিজিবি-আনসার-সেনাবাহিনীর ২০ জন সদস্যসহ দেড়শ’ মানুষের নিহত হওয়ার কথাও উল্লেখ করেন সরকার প্রধান।
“তাদের সহিংস হামলা, পেট্রোল বোমা, অগ্নিসংযোগ ও বোমা হামলায় নিহত হয়েছে প্রায় ২০০ নিরীহ মানুষ। নির্বাচনের দিন ৫৮২টি স্কুলে আগুন দিয়েছে। প্রিসাইডিং অফিসারসহ ২৬ জনকে হত্যা করেছে।”
দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়ার অংশ না নেওয়াকে ‘রাজনৈতিক ভুল’ মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “তাদের ভুলের খেসারত জনগণকে দিতে হবে কেন?”
আওয়ামী লীগ বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে নিতে কাজ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, দেশকে পিছিয়ে নিতে বিএনপি-জামায়াত জোট আবার ‘মানুষের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’ ঘোষণা করেছে।

শেয়ার