খালেদার প্রতি আহ্বান দিনমজুর শ্রমিকদের পেটে লাথি মারবেন না

file986
সমাজের কথা ডেস্ক॥

তৃণমূল দিনমজুর সমিতির আয়োজনে অবরোধ-হরতাল তুলে নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন দিনমজুররা। পরে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের সামনে সড়ক অবরোধ করে সেখানে অবস্থান নেন তারা।
শনিবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গুলশানে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে আসে তৃণমূল দিনমজুর সমিতি ও তৃণমূল হকার সমিতি।
এ সময় শ্রমিকদের হাতে ঝুড়ি, কোদাল, খুন্তি, হাতুড়ি, বাটালসহ ক্ষেতে-খামারে কাজ করার নানা সামগ্রী ছিল। সমাবেশের শতাধিক শ্রমিকের মধ্যে অর্ধেকই ছিলেন নারী শ্রমিক।
সমাবেশে খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে তৃণমূল দিনমজুর সমিতির সভাপতি জহিরুল হক মিন্টু বলেন, আমাদের কাজ নেই, খাবার নেই। আপনি অন্য পন্থায় আন্দোলন করুন। অবিলম্বে হরতাল-অবরোধ বন্ধ করুন। নইলে আপামর জনতা আপনাকে কোনোদিনই গুলশান কার্যালয় থেকে বের হতে দেবে না।
রাজনৈতিক সমস্যা আপনারা রাজনৈতিক আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করুন। দিনমজুর শ্রমিকদের পেটে লাথি মারবেন না। আর যেন কোনো মানুষকে পেট্রল বোমার আঘাতে মরতে না হয়। আমরা স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানাবেন না। যদি তাই করতে চান, তাহলে আপনি পাকিস্তানে চলে যান।

দিনমজুর জুতা শ্রমিক সমিতির সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, দীর্ঘ একমাস ধরে আমরা বেকার। কারও কোনো কাজ নেই। পেটের তাগিদে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের সামনে এসে অবরোধ-হরতাল প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

রেনু আক্তার নামের ৪০ বছর বয়সী এক বিধবা নারী বলেন, নির্মাণ কাজ করে আমার সংসার চলে। গত তিনমাস ধরে আমি ঘর ভাড়া দিতে পারছি না। খালেদা জিয়ার কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি, অবিলম্বে হরতাল-অবরোধ তুলে নিয়ে কাজ করার সুযোগ দিন।
খালেদার কার্যালয়ের সামনে তৃণমূল দিনমজুর সমিতি ও তৃণমূল হকার সমিতির অবস্থানের সময় গুলশান-২ গোল চত্ত্বরে আওয়ামী যুবলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার কয়েকশ’ নেতাকর্মী এসে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন।

উত্তর যুবলীগের সভাপতি মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নেতৃত্বে বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন ব্যানার- ফেস্টুন নিয়ে হরতাল-অবরোধবিরোধী শ্লোগান দেন। প্রায় আধঘণ্টা সেখানে অবস্থানের পর তারা চলে যান। এ ঘটনার পর থেকে গুলশান-২ চত্ত্বর ও খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শেয়ার