সমাজের কথার ফটো সাংবাদিককে হুমকি ॥ তেল চোরদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলার অনুমতি চাইবে পুলিশ

humki
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ সড়কে চলাচলকারী তেলবাহী লরির ট্যাংকি থেকে তেল চুরির ছবি পত্রিকায় প্রকাশকে কেন্দ্র করে দৈনিক সমাজের কথা’র ফটো সাংবাদিক মাসুদুজ্জামান লতা’র হুমকিদাতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আইনি প্রক্রিয়া শুরু করেছে পুলিশ।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাঠি এলাকার আকরাম হোসেন ও আলী হোসেন নামের দুই ব্যক্তি মিলে তেল চুরি সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছে। যশোর-ঝিনাইদহ সড়কে চলাচলরত বিভিন্ন ওয়েল কোম্পানির তেলবাহী লরির চালকদের যোগসাজসে তারা লরি থামিয়ে তেল চুরি করে আসছে। সম্প্রতি বিষয়টি নজরে আসলে ফটো সাংবাদিক মাসুদুজ্জামান লতা তেলবাহী লরি থেকে তেল চুরির দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করেন। গত ১৯ জানুয়ারি ছবিটি সমাজের কথা পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এতে চোর সিন্ডিকেট তেলে-বেগুনে জ্বলে ওঠে। ওই দিনই একাধিক মোবাইল নম্বর থেকে ও প্রকাশ্যে তেল চোর আকরাম হোসেন ও আলী হোসেন মাসুদুজ্জামান লতাকে জীবননাশের হুমকি দেয়। এতে বাধ্য হয়ে ভুক্তভোগী ফটো সাংবাদিক মাসুদুজ্জামান লতা বাদী হয়ে হুমকিদাতা দুই তেল চোরের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। এতে সদর উপজেলার সাবাজপুর গ্রামের চান্দালী বিশ্বাসের দুই ছেলে আকরাম হোসেন ও আলী হোসেনকে আসামি করা হয়। পরবর্তীতে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) ইনামুল হক বিষয়টি তদন্তের জন্য থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক আমিনুর রহমানকে নির্দেশ দেয়। বিষয়টি তদন্ত করে বাদী-আসামি ও সাক্ষীদের গতকাল শনিবার নোটিশের মাধ্যমে থানায় ডাকেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। গতকাল বিকেলে বাদী-সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় আসামিদের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়ায় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।
যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমিনুর রহমান সমাজের কথাকে বলেন, সাক্ষীদের সাক্ষ্য শুনে ও তদন্তকরে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। আজ রোববার (০১ ফেব্রুয়ারি) জিডি অভিযোগটি নন-এফআইআর মূলে আদালতে প্রসিকিউশন পাঠানো হবে। আদালতের বিচারকের অনুমতি মিললে দ্রুত জিডিটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করে আসামিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে পুলিশ।

শেয়ার