কবর দেয়ার সময় জেগে উঠলো মৃত শিশু!

Azimpur
সমাজের কথা ডেস্ক॥ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একের পর এক ঘটছে অলৌকিক সব ঘটনা। ঢামেকে মৃত ঘোষণার প্রায় ১৫ ঘণ্টা পর কবর দেয়ার সময় এবার জেগে উঠলো নবজাতক। ওই শিশুকে পরে আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছে। এখন শিশুটিকে সেখানেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

শনিবার দুপুরে ঢামেকের ২১২ নম্বর গাইনী ওয়ার্ডে শিশুটিকে নিয়ে আসা হয়।

শিশুর খালু মাহমুদুল করিম জানান, গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ঢামেকের ২১২ নম্বর গাইনী ওয়ার্ডে সুলতানা বেগমকে ভর্তি করানো হয়। এসময় তিনি একটি ছেলে শিশুর জন্ম দেন। কিন্তু চিকিৎসকরা নবজাতককে মৃত ঘোষণা করেন।

আজ শনিবার দুপুরে স্বজনরা আজিমপুরের কবরস্থানে দাফন করতে গেলে শিশুটি নড়েচড়ে ওঠে। এ দৃশ্য দেখে সবাই চমকে যান। পরে স্থানীয় ছাত্র ও অন্যদের সহায়তায় শিশুটিকে ঢামেকের আইসিইউতে ভর্তি করানো হয়।

এদিকে শিশুটিকে একনজর দেখার জন্য সেখানে উৎসুক জনতার ভিড় বাড়ছে।

মাহমুদুল করিম জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের চুনকুঠিয়া গ্রামে। সুলতানা বেগমের স্বামীর নাম জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি একটি কারখানায় কাজ করেন।

এর আগে গত ৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক নারীকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এমনকি ‘মৃত্যুর প্রমাণপত্র’ (ডেথ সার্টিফিকেট) ইস্যু হয়েছিল তার নামে। মরদেহও নিতে এসেছিলেন মগের্র লোকজন। কিন্তু মৃত ঘোষণার ঘণ্টা তিনেক পর জেগে উঠে ওই নারী সবাইকে চমকে দেন।

মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান এ ঘটনায় দুঃখও প্রকাশ করেছিলেন। যদিও ওই নারীকে পরে আর বাঁচানো সম্ভব হয়নি। দুইদিন পরই তার মৃত্যু হয়।

শেয়ার